অবৈধ অভিবাসীকে এলিয়েন বললে অর্থদণ্ড

ঠিকানা রিপোর্ট: নিউইয়র্ক শহর অবৈধ অভিবাসীদের স্বর্গরাজ্য হলেও নানা সময় তাদের বিভিন্ন ধরনের বৈষম্যের শিকার হতে হয়। পিউ রিসার্চ সেন্টারের প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, নিউইয়র্ক নগর অঞ্চলে প্রায় ১২ লাখ অবৈধ অভিবাসীর বাস। অবৈধ হলেও এসব অভিবাসীর অধিকার সুরক্ষায় নিউইয়র্ক শহর নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় নিউইয়র্ক শহরে নতুন একটি আইন কার্যকর করা হয়েছে। এই আইনে বলা হয়েছে, নিউইয়র্কে অবৈধভাবে বসবাসরত অভিবাসীদের কটাক্ষ করে ‘অবৈধ অ্যালিয়েন’ শব্দটি ব্যবহার করা যাবে না। আমেরিকায় অবৈধভাবে আছে এমন সন্দেহে কাউকে ‘আইস’ ডাকার হুমকি দেয়া যাবে না। নতুন আইনে এটি অবৈধ বলে গণ্য হবে। এতে বিপুল পরিমাণ অর্থদন্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর মানবাধিকার সম্পর্কিত নিউইয়র্ক সিটি কমিশন নতুন আইন প্রয়োগের একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে যাতে উল্লেখ করা হয়েছে- যা জনসাধারণের থাকার ব্যবস্থা, কর্মসংস্থান ও আবাসনের ক্ষেত্রে নিউইয়র্ক সিটি মানবাধিকার আইনের আওতায় অনুভূত বা প্রকৃত অভিবাসন অবস্থা এবং জাতীয় উৎসের ভিত্তিতে বৈষম্যকে সংজ্ঞায়িত করে।’ নতুন নির্দেশিকাতে ‘অবৈধ অ্যালিয়েন’ শব্দটি বা ‘অনুরূপ অবমাননাকর বা কাউকে হয়রানি করা’ আইনের অধীনে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

নিউইয়র্ক শহরের নতুন নির্দেশিকা আবার কারও বিরুদ্ধে ইংরেজি দক্ষতা ও কাউকে ধরাতে অভিবাসন কর্তৃপক্ষকে ডাকার হুমকি নিষিদ্ধ করেছে। সিএনএন সূত্রে জানা যায়, এই আইন লঙ্ঘনের ফলে দুই কোটি পাঁচ লাখ ডলার পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে।

নিউইয়র্কের মেয়র অফিস ও অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার বিত্তা মোস্তোফি বলেন, ‘এই গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা তৈরি ও প্রকাশের জন্য আমরা মানবাধিকার সম্পর্কিত নিউইয়র্ক সিটি কমিশনের সঙ্গে কাজ করেছি বলে আমরা গর্বিত। কারণ আমরা অভিবাসী স¤প্রদায়ের সুস্বাস্থ্যের জন্য হুমকিস্বরূপ ফেডারেল সরকারের ভয় ও জিনোফোবিক নীতিমালার বিরুদ্ধে লড়াই করেছি।’