আটলান্টার বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

শামসুল আলম, আটলান্টা থেকে : আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জর্জিয়া রাজ্যের আটলান্টায় বিভিন্ন সংগঠনের আয়োজনে আনুষ্ঠানিকভাবে ৫২-এর ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। স্থানীয় ‘বাংলা ধারা’র আয়োজনে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় ভার্চুয়াল মিটিংয়ের মাধ্যমে ভাষা আন্দোলনে শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন এবং মাগফেরাত কামনা করা হয়। বাংলা ধারার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা শামসুল আলম, মাহবুবুর রহমান ভূইয়া (সভাপতি), রেদোয়ান হৃদয় (সাধারণ সম্পাদক) এবং সদস্য মারুফ ভূইয়া ও ইলা চন্দ।

অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জর্জিয়া স্টেট সিনেটর শেখ রহমান চন্দন, অধুনালুপ্ত ‘মাসিক প্রিয় বাংলা’ সম্পাদক সোহেল আহমদ, বিশিষ্ট সমাজ সংগঠক, এম মৌলা দিলু, জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী তসলিমা সুলতানা পলি, আবৃত্তিকার আরেফিন চৌধুরী পিয়াল, লেখিকা ও গল্পকার নাজনীন লিপি, আবৃত্তিকার রঞ্জন চৌধুরী। বাংলা ধারার অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা-সদস্য সাংগঠনিক লেখক রুমি কবির ব্যক্তিগত সমস্যার কারণে যুক্ত হতে পারেননি, তবে অনলাইনে এক ভিডিও বার্তায় একুশের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। সংগঠনের অপর সদস্য প্রবাসে জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী রোমেল খান ভিডিও সংযোগে একুশভিত্তিক সংগীত পরিবেশন করেন।

ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন প্রায় সবাই এবং কবিতা আবৃত্তি করেন। বর্তমান ও আগামী প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের মাঝে বাংলা ভাষা-সংস্কৃতির আলো ছড়িয়ে দেওয়ার দায়িত্ব আমাদের সংগঠনগুলির এবং সর্বোপরি এটা প্রতিটি ঘরে ঘরে বাবা-মায়ের দায়িত্ব বলে সবাই একমত পোষণ করেন।

অনুষ্ঠানে মধুর কণ্ঠে পর পর দুটি সংগীত পরিবেশন করে তসলিমা সুলতানা সবাইকে মুগ্ধ করেন। অনুষ্ঠান চলাকালে জর্জিয়ায় একটি বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠা ও একটি অস্থায়ী শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার দাবি সকলের আলোচনায় আসে।

এ প্রসঙ্গে অনুষ্ঠানে উপস্থিত স্টেট সিনেটর শেখ রহমান বলেন, বাংলা স্কুল ও অস্থায়ী শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আপনারা কোন সিদ্ধান্ত নিলে, আমি স্টেটের প্রয়োজনীয় অনুমোদন নিতে পারব; তবে এ ব্যাপারে প্রাথমিক উদ্যোগ আপনাদেরই নিতে হবে।

ভাষা দিবস উদযাপনের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত সুন্দর এবং সুসংগঠিত ছিল। মাহবুব ভূইয়া এবং রেদোয়ান হৃদয়ের সাবলীল সঞ্চালনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। বিশ্ব মহামারী কোভিড-১৯-এর সীমাবদ্ধতার কারণে এবার বাংলা ধারা ভার্চুয়াল আয়োজনে ভাষা দিবস উদযাপন করল।

সম্মিলিত পরিষদ, জর্জিয়া : একুশের ১ম প্রহরে রাত ১২-০১ মিনিটে স্থানীয় ইন্ডিয়ান গ্রীল রেস্টুরেন্টের চত্বরে স্থাপিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে ’৫২-এর ভাষা শহীদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নবগঠিত সম্মিলিত পরিষদ, জর্জিয়া। পুষ্পাঞ্জলি প্রদানের আগে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসের তাৎপযর্য উল্লেখ করে উত্তম দে ও ইলিয়াস হাসানের উপস্থাপনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা অংশ নেন, কায়েদুজ্জামান, মিনার হক, নবুয়ত মজলিশ, সাদমান সুমন, সাজ্জাদুল ইসলাম রুবেল, শহিদুল ইসলাম ঠান্ডু, সাগর চক্রবর্তী, মোহাম্মদ রহমান, মাহমুদ রহমান, শেখ জামাল, মোহন জব্বার, ভাস্কর চন্দ্র, দিদারুল আলম গাজীসহ কম্যুনিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
বক্তারা সবাই ভাষা আন্দোলনে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং শ্রদ্ধা জানিয়ে আলোচনা করেন। আমাদের বর্তমান ও আগামী প্রজন্মের মাঝে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির জ্ঞান ছড়িয়ে দেওয়ার দায়িত্ব হলো ঘরে ঘরে প্রতিটি বাবা-মায়ের বলে বক্তারা সব বাবা-মায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং এ ব্যাপারে বিশেষ যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানান। ব্যক্তিগত উপস্থিতির মাধ্যমে সম্মিলিত পরিষদ, জর্জিয়ার আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ব্যক্তি ও বেশ কয়েকটি সংগঠনের অংশগ্রহণ ছিল।