আটলান্টিক সিটিতে ‘রাধার মানভঞ্জন’ মঞ্চস্থ

আটলান্টিক সিটি থেকে প্রতিনিধি : শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে বাংলাদেশের নানা অঞ্চলে ঐতিহ্য ও বংশ পরম্পরায় নানা লোক-উৎসবের আয়োজন করা হয়।তারই ধারাবাহিকতায় রাধা- কৃষ্ণের প্রেমলীলাকে উপজীব্য করে রচিত লোক- গীতিনৃত্যনাট্য `রাধার মানভঞ্জন’ মঞ্চস্থ হলো সুদূর আমেরিকায়। নিউজার্সি অঙ্গরাজ্যের আটলান্টিক সিটিতে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে শ্রী শ্রী গীতা সংঘের উদ্যোগে মঞ্চস্থ হয়েছে ‘রাধার মানভঞ্জন’ । গত ১৮ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার রাতে গীতা সংঘ প্রাঙ্গণে ‘রাধার মানভঞ্জন’ মঞ্চস্থ হয়।
প্রবাসে বহুজাতিক সংস্কৃতিতে বেড়ে ওঠা প্রজন্মের অংশগ্রহণে ‘রাধার মানভঞ্জন’ উপস্থিত সুধীজন প্রাণভরে উপভোগ করেন। খুদে শিল্পীদের পরিবেশনা ছিল মন্ত্রমুগ্ধ হওয়ার মতো। নৃত্য শিল্পী ও কোরিওগ্রাফার নিবেদিতা ভট্টাচার্যের সুনিপুণ নির্দেশনায় খুদে অংশগ্রহণকারীরা তাদের নান্দনিক পরিবেশনায় প্রায় এক ঘণ্টা ধরে উপস্থিত সুধীজনদের বিমোহিত করে রাখে। সেই সঙ্গে সুধীজনদের বাড়তি পাওনা ছিল জয়ন্ত কুমার সিংহ, আন্না মিএ ও মণিকা দাসের সাবলীল ও প্রাঞ্জল ধারাবর্ণনা।
অনুষ্ঠানের গ্রন্থনায় ছিলেন জয়ন্ত কুমার সিংহ। এতে অংশগ্রহণ করে পার্বতী, রিয়া দাশ, হৃদিকা, অনামিকা, সুদীপ্তা, অনিন্দিতা, ঐশীকা, সপ্তর্ষি, বর্ষণ ও তুহিন। রূপসজ্জা ও কেশবিন্যাসে ছিলেন বৈশাখী দাশ,রূপশ্রী চৌধুরী, বহ্নি চৌধুরী ও নিশা বিশ্বাস।
নির্দেশক নিবেদিতা ভট্টাচার্য জানান, ”দেশ ছেড়ে প্রবাসে আসলেও দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে অন্তরে লালন করে চলেছি। প্রবাসে বহুজাতিক সংস্কৃতিতে বেড়ে ওঠা প্রজন্মের মনোজগতে দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে জাগরুক রাখার লক্ষ্যেই আমার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।”
অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সুধীজন ভিন্ন সংস্কৃতিতে বেড়ে ওঠা প্রজন্মের নান্দনিক পরিবেশনার জন্য তাদের টুপি খোলা অভিনন্দন জানান এবং কোরিওগ্রাফার নিবেদিতা ভট্টাচার্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এই অনুষ্ঠান উপভোগ করার জন্য ওই দিন সন্ধ্যায় প্রবাসী হিন্দুদের সব পথ এসে যেন মিশেছিল গীতা সংঘ প্রাঙ্গণে। কাদা থিক থিক ভিড়ে পরিণত হয়েছিল পুরো উৎসব প্রাঙ্গণ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অনেক প্রবাসী প্রবীণ অনুষ্ঠান উপভোগ করতে করতে নস্টালজিক হয়ে পড়েন। অনুষ্ঠান শেষে সবাই তৃপ্তির ঢেকুর তুলতে তুলতে নিজ ডেরার পথে পা বাড়ান।