আমেরিকান তরুণী ম্যাকনেলির চমক

স্পোর্টস ডেস্ক : সপ্তাহ খানিক আগেও যদি প্রশ্ন করা হতো সিটি ওপেনের সেমিফাইনালে উঠার সম্ভাবনা রয়েছে কোনো তরুণীর? তাহলে অনেকের ধারণাতেই থাকত কোকো গাফের নাম। তবে ওয়াশিংটনে সবার ধারণা বদলে দিলেন ক্যাথেরিন ম্যাকনেলি। দুর্দান্ত খেলেই টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছেন এই আমেরিকান তরুণী। গত ২ আগস্ট ১৭ বছরের এই প্রতিভাবান খেলোয়াড় সিয়ে সু-উইকে পরাজিত করে টুর্নামেন্টের শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করেন। এ দিন তিনি ৬-৪ এবং ৬-৩ গেমে সরাসরি সেটে পরাজিত করেন টুর্নামেন্টের চতুর্থ বাছাই সিয়ে সু উইকে। সেই সঙ্গে ক্যারিয়ারের প্রথম কোন টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠার গৌরব অর্জন করলেন ক্যাথেরিন ম্যাকনেলি।

এই ম্যাচের পর দারুণ রোমাঞ্চিত তরুণ খেলোয়াড় ম্যাকনেলি। তবে ম্যাচটা প্রতিপক্ষ হিসেবে সু উই জিতুক সেটাই চেয়েছিলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে নিজের অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে ম্যাকনেলি বলেন, ‘এই ম্যাচটা সে জিতুক আমি সেটাই চেয়েছিলাম খুব করে। কেননা আমার জয় নয় বরং তার বিপক্ষে খেলাটাই ছিল একটা বিস্ময়কর অভিজ্ঞতা।’ এ সময় ম্যাকনেলি আরও বলেন, ‘সে কিভাবে খেলে সেটা জানা ছিল আমার। আমি মনে করি, সবকিছুর জন্যই প্রস্তুত ছিলাম। এটাই আমার জন্য খুব সহায়ক ছিল। আমি মনে করি সেমিফাইনালে ওঠার পথে এটাই কাজে দিয়েছে আমাকে। তবে সে বলে অনেক হিট করতে পারে। যা অনেক খেলোয়াড়ের পক্ষেই সম্ভব না। সে দুই হাতে এবং উভয়দিক থেকেই বলে হিট করতে পারে। শুধু তাই নয় সে অবিশ্বাস্য দিক থেকে কিছু হিট করতে পারে। আমিও তার এসব বিষয়ের জন্য প্রস্তুত ছিলাম। এ জন্য আমার কোচও আমাকে দারুণভাবে সহায়তা করেছে। আমি মনে করি সত্যিই খুব ভালো খেলেছি তার বিপক্ষে।’

সেমিফাইনালে ক্যাথেরিন ম্যাকনেলির প্রতিপক্ষ ক্যামিলা জিওর্জি। সিটি ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালিয়ান তারকাও সরাসরি সেটে পরাজিত করেছেন জেরিনা ডায়াসকে। জিওর্জি এদিন ৬-৩ এবং ৬-২ গেমে জিতে সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেন। ম্যাকনেলি অবশ্য সেমিফাইনালে জিওর্জিকে পেয়েও দারুণ উচ্ছ্বসিত। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি সত্যিই খুশি। সে খুব ভাল খেলোয়াড়। সে কোর্টে খুব ভালো পারফর্ম করছে। তার ক্যারিয়ারও বেশ দীর্ঘ।’

শুধু এককে নয়, ক্যাথেরিন ম্যাকনেলি সিটি ওপেনের দ্বৈতেও দুর্দান্ত খেলছেন। কোকো গাফের সঙ্গে জুটি বেঁধে এই টুর্নামেন্টের ফাইনালেও জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। গত ৩ আগস্ট সেমিফাইনালে তারা ৬-১ এবং ৬-২ গেমে পরাজয়ের স্বাদ উপহার দেন তৃতীয় বাছাই রাশিয়ার আনা কালিন্সকায়া এবং জাপানের মিউ কাটোকে। দ্বৈতের ফাইনালে উঠে তো আরও বেশি আনন্দিত ম্যাকনেলি। এ প্রসঙ্গে শেষ চারের লড়াইয়ের পর তিনি বলেন, ‘ফাইনালে উঠে আমি সুপার আনন্দিত। এক সঙ্গে জুটি বেঁধে এটা আমাদের কেবল দ্বিতীয় ইভেন্ট। আর এই সময়ের মধ্যেই প্রমাণ করে ফেলেছি যে আমরা ভালো খেলতে পারি।’

গত উইম্বলডনে দুর্দান্ত পারফর্ম করেন কোকো গাফ। এরপর শিরোপা জিততে না পারলেও আলোচনার তুঙ্গে রয়েছেন এই আমেরিকান। এবার সিটি ওপেনের দ্বৈতেও পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখলেন তিনি। তবে কোকো গাফের সঙ্গে এবার আলোচনায় ক্যাথেরিন ম্যাকনেলিও। এই মুহূর্তে তার আনন্দটা অবশ্য গাফের চেয়েও অনেক বেশি। কেননা একই সপ্তাহে একক এবং দ্বৈতের দুটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নিজেকে নিয়ে গেছেন তিনি। তাই তার উচ্ছ্বাসটাও বেশি। এ প্রসঙ্গে আমেরিকান তারকা বলেন, ‘আমার জন্য এই সপ্তাহটা অনেক কিছুই। কেননা এবারই আমি প্রথম মেইন ড্রয়ের এককে এবং দ্বৈতে জয় পেয়েছি। এই মুহূর্তে এককের সেমিফাইনালে এবং দ্বৈতের ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছি।’ ক্যাথেরিনের জন্য কোকো গাফও গর্বিত। এ প্রসঙ্গে দ্বৈতের ফাইনালে ওঠার পর তিনি বলেন, ‘আমাদের দু’জনের জন্যই এই সপ্তাহটা বেশ ভালো কেটেছে। ’