আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন

নবনির্বাচিত সভাপতি মোহাম্মদ সাঈদ (বাঁয়ে) ও সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক

সাঈদ সভাপতি, মনজুরুল সা. সম্পাদক

ঠিকানা রিপোর্ট : আমেরিকার বাংলাভাষী সংবাদপত্র ও ইলেট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকদের সমন্বয়ে ২০০৮ সালে গঠিত ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের দুই বছর মেয়াদি (২০২০-২০২২) সালের জন্য সাত সদস্যবিশিষ্ট কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তারা নির্বাচিত হয়েছেন। গত ৩০ আগস্ট নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের টাপেন বিচ পার্কে অনুষ্ঠিত সংগঠনের বার্ষিক সাধারণ সভায় সদস্যদের ভোটে সভাপতি পদে ‘সাপ্তাহিক প্রবাস’ সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ ও প্রথম আলো নর্থ আমেরিকার চিফ রিপোর্টার মনজুরুল হক সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মশিউর রহমান। কার্যকরী পরিষদের সদস্যরা হলেন- বিদায়ী কমিটির সভাপতি দর্পণ কবীর ও সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন সাগর, সহসাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল লিটন ও আবু বকর সিদ্দিক ।
সংগঠনের সভাপতি দর্পণ কবীরের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন সাগরের পরিচালনায় সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেনÑ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও পরিচয় সম্পাদক নাজমুল আহসান, ‘সাপ্তাহিক আজকাল’ এর সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক মিলা হোসেন, কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন প্রমুখ।

নিউইয়র্ক : প্রেসক্লাবের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন মোহাম্মদ সাঈদ।

এই সাধারণ সভায় জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীনকে প্রেসক্লাবের বিশেষ সম্মাননা সদস্য পদ প্রদান করা হয়। বিশেষ সম্মানিত সদস্য আইডি বেবী নাজনীনকে প্রদান করেন ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাজমুল আহসান। নতুন কমিটির নাম ঘোষণার পর নতুন কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সাঈদ এবং সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক মনজু শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এবং তারা প্রেসক্লাবের সদস্যদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্য বজায় রাখার অঙ্গীকার করেন। শুভেচ্ছা বক্তব্যে নাজমুল আহসান বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব গঠিত হয়েছিল ২০০৮ সালে। ক্লাবটিতে সাংবাদিকদের পেশাগত সম্পর্ক সম্প্রীতিময় এবং তাদের মধ্যে পারিবারিক বন্ধন বৃদ্ধ করার লক্ষ্যে সকলে কাজ করেছেন। আজ তাই আমরা করোনাকালেও খোলা আকাশের নিচে সাধারণ সভা করতে পারছি। শুভেচ্ছা বক্তব্যে আজকাল পত্রিকার সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সঙ্গে আজকাল পরিবারের বন্ধন অটুট।
এ পেশায় পেশাদারিত্ব বজায় রাখতে সবাইকে সচেষ্ট হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। নবনির্বাচিত কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সাঈদ তার বক্তব্য বলেন, নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে আজকে আমরা একত্রিত হয়েছি। দায়িত্ব পাওয়া থেকে দায়িত্ব পালন করা কঠিন কাজ।
এই ক্লাবের প্রতিটি সদস্যকে আমরা নিজেদের পরিবারের সদস্য বলে মনে করি। আমরা সবার সহযোগিতা নিয়ে ক্লাবের মান-সম্মান আরো বৃদ্ধি করবÑ এই প্রত্যাশা করছি।
নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হক বলেন, কোভিট-১৯-এর ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাজনৈতিক নেতা, ডাক্তার, সামাজিক বৌদ্ধা, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবীসহ সচেতন মহল দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আমরাও সংবাদপত্রের মাধ্যমে সমাজকে জনসচেতনতার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
আগামীতে ক্লাবের যেসব কর্মপরিকল্পনা থাকবে তা আপনাদের সবার সহযোগিতায় আমরা বাস্তবায়নের চেষ্টা করব। তাই সব সময় সবার সহযোগিতা পাওয়ার প্রত্যাশা রাখছি।
এ দিন সাধারণ সভায় ক্লাব সদস্যরা পরিবার-পরিজন নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। সদস্যদের মধ্যে সাধারণ সভায় আরো যারা উপস্থিত ছিলেনÑ তারা হলেন বেলাল আহমেদ (সহসভাপতি), সামসুন্নাহার নিম্মি, শামসুল আলম (ইসি মেম্বার), তাপস সাহা (কোষাধ্যক্ষ), সীমা সুস্মিতা, মল্লিকা খান মুনা (ইসি মেম্বার), আবু বকর সিদ্দিক (ইসি মেম্বার), সাবেক সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান রচি, মশিউর রহমান মজুমদার, সহসাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল লিটন, মনজুরুল হক, পাপিয়া বেগম ও মোহাম্মদ হামিদ।
বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন সাগর বলেন, আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা করেছি ক্লাবকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য। করোনার কারণে সংগঠনের কিছু কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে। পেছনের দিকে না তাকিয়ে আমরা সামনের দিকে পথ চলব।
সাবেক সভাপতি দর্পণ কবীর বলেন, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আমাদের প্রাণের ক্লাব।
সভাপতি হিসেবে কি দায়িত্ব পালন করেছি, তা বড় কথা নয়। ক্লাবের সার্বিক কল্যাণে অতীতেও সময় দিয়েছি ভবিষ্যতেও সময় দেবো। এর জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। সর্বশেষ বিনামূল্যে ক্রয়কৃত টিকিটের র‌্যাফল-ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এই র‌্যাফল ড্র-তে প্রথম পুরস্কার পান শওকত ওসমান রচি। তাকে পুরস্কার তুলে দেন মডেল ও অভিনেত্রী মিলা হোসেন। দ্বিতীয় পুরস্কার লাভ করেন সামসুন্নাহার নিম্মি। তাকে পুরস্কার তুলে দেন কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন। তৃতীয় পুরস্কার লাভ করেন মল্লিকা খান মুনা। তাকে পুরস্কার প্রদান করেন ক্লাব সদস্য সীমা সুস্মিতা।
এ দিন সাধারণ সভায় ক্লাবের ইসি সদস্য আলোক-চিত্র সাংবাদিক এ হাই স্বপনের প্রয়াণের ঘটনায় শোক প্রস্তাব করা হয়। এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালনের মধ্যে দিয়ে তাঁর প্রয়াণে শ্রদ্ধা প্রকাশ করা হয়।