আসামে নাগরিকত্ব প্রমাণের সময়সীমা বাড়ল

বিশ্বচরাচর ডেস্ক : আসামে নাগরিকত্ব প্রমাণের সময়সীমা ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। এ সময়ের মধ্যে দাবি ও আপত্তি জানানোর সুযোগ পাবেন আসামের জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন তালিকার (এনআরসি) চূড়ান্ত খসড়া থেকে বাদ পড়া ব্যক্তিরা। একই সঙ্গে আগের ১০টি নথি ছাড়াও আরও পাঁচটি নথি দাবির সপক্ষে প্রামাণ্য দলিল হিসেবে পেশ করার অনুমতি দিয়েছেন শীর্ষ আদালত। এই পাঁচটি নথি নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন আসাম এনআরসির সমন্বয়ক প্রতীক হাজেলা। খবর এনডিটিভির।
আসামের রাজধানী গৌহাটিতে গত ৩০ জুলাই চূড়ান্ত জাতীয় নাগরিকত্ব নিবন্ধন তালিকা উন্মুক্ত করেন রেজিস্ট্রার জেনারেল অব ইন্ডিয়া। এরপর নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে ৩ কোটি ২৯ লাখ অধিবাসী। কিন্তু চূড়ান্ত তালিকায় দুই কোটি ৮৯ লাখকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তালিকা থেকে বাদ পড়ে রাজ্যের ৪০ লাখ ৭ হাজার ৭০৭ জন বাসিন্দা। আসামে এখন তাদের অবৈধ বিদেশি বলে চিহ্নিত করা হচ্ছে। কোনো কোনো মহল থেকে তাদের বাংলাদেশে ঠেলে পাঠানোর দাবিও উঠছে। এ অবস্থায় আসামে নাগরিক তালিকায় নতুন করে নাম তোলা এবং এ সংক্রান্ত আপত্তি জানানোর জন্য নতুন তারিখ ঘোষণা করেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। আদালত জানান, ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করে পরবর্তী ৬০ দিন ধরে এই প্রক্রিয়া চলবে। সে অনুযায়ী ২৫ নভেম্বরের মধ্যে এ সময়সীমা শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। তবে গত ১ নভেম্বর আপত্তি জানানোর সময়সীমা আরও বাড়িয়ে ১৫ ডিসেম্বর করেছেন আদালত।
এ ছাড়া দাবির স্বপক্ষে প্রমাণ হিসেবে ১৫টি নথিকে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। আসাম সরকারসহ অনেকেই তাদের অ্যাফিডেভিটে ১৫টি নথিই যুক্ত করার দাবি করেছিলেন।