ইউক্রেনে ট্যাঙ্ক পাঠাতে পোল্যান্ডের পথে বাধা হবে না জার্মানি : মন্ত্রী

ঠিকানা অনলাইন : জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বায়েরবক জানিয়েছেন রুশ দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে যুদ্ধে কিয়েভকে সহায়তা করতে পোল্যান্ড যদি অনুরোধ করে তবে তারা দেশটিকে থেকে জার্মানির তৈরি লেপার্ড ট্যাঙ্ক ইউক্রেনে পাঠাতে প্রস্তুত রয়েছে।

২২ জানুয়ারি (রবিবার) প্যারিসে ফ্রান্স-জার্মানি সম্মেলনের পর এলসিআই টেলিভিশনকে বায়েরবক বলেন, ‘যদি আমাদের এই প্রশ্ন করা হয় তবে আমরা এই পথ আটকাবো না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা জানি এই ট্যাঙ্কগুলো কতটা গুরুত্বপূর্ণ আর এ কারণেই আমরা আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছি। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে ইউক্রেনের ভৌগলিক অখণ্ডতা পাশাপাশি রক্ষা করতে হবে মানুষের জীবন।’ খবর আলজাজিরার।

এ ধরনের বার্তা এই সংকেত দেয় যে, ইউক্রেন ও অন্যান্য মিত্র দেশের ক্রমাগত চাপের মুখে যুদ্ধ চলতে থাকা ইউক্রেনে অন্যান্য ইউরোপীয় দেশ থেকে জার্মানির তৈরি ট্যাঙ্ক সরবরাহ করার বিষয়টিকে বার্লিন অনুমোদন দিতে প্রস্তুত রয়েছে। চুক্তি অনুয়ায়ী ইউরোপীয় দেশগুলোকে বাইরে এসব ট্যাঙ্ক পাঠাতে চাইলে অবশ্যই জার্মানির অনুমতি নিতে হবে।

এ পর্যন্ত দখলদার রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে আত্মরক্ষায় ইউক্রেনে পশ্চিমা দেশের ডিজাইন করা কোনো ব্যাটল ট্যাঙ্ক পাঠানো হয়নি।

এদিকে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন তার পশ্চিমা মিত্রদের কাছে ক্রমাগত আরও দ্রুত ও বেশি সামরিক সহায়তা চাইছে। ২১ জানুয়ারি (শনিবার) ইউক্রেনের প্রেসিডেন্সিয়াল উপদেষ্টা মিখাইলো পোডোলায়েক বলেন, ‘প্রতিদিনের দেরিতে ইউক্রেনে আরও বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে। দ্রুত চিন্তা করুন।’

এই সমালোচনার বিষয়টি এলো জার্মানির রামস্টিনে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান ঘাঁটিতে ৫০টি দেশের বৈঠকে ইউক্রেনে আরও বেশি অর্থ সাহায্য, সাঁজোয়া গাড়িসহ সামরিক সরঞ্জাম পাঠাতে আনুষ্ঠানিক সম্মতির পর। তবে এতে বিশ্বের অত্যাধুনিক মডেলের জার্মানির তৈরি লেপার্ড-২ ট্যাঙ্ক ইউক্রেনে পাঠাতে কোনো ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারেনি তারা।

এদিকে পোল্যান্ড এক ঘোষণায় জানিয়েছে যে তারা ১৪টি লেপার্ড ট্যাঙ্ক কিয়েভে পাঠাতে প্রস্তুত রয়েছে। তবে দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাতেউসজ মোরাওয়েকি রোববার জানিয়েছেন তিনি বার্লিনের কাছ থেকে এ বিষয়ে ‘পরিষ্কার বিবৃতি’ চান।

ঠিকানা/এসআর