এডিটর্স কাউন্সিলের সভায় লাবলু আনসারের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা

নিউইয়র্ক : এডিটর্স কাউন্সিলের সভায় নেতৃবৃন্দ।

ঠিকানা রিপোর্ট : নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সর্বাধিক প্রচারিত ও সবচেয়ে পুরোনো ৯টি বাংলা সংবাদপত্রের সম্পাদকদের সংগঠন এডিটর্স কাউন্সিলের সভা গত ১৬ জানুয়ারি সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের ইটজি চায়নিজ রেস্টুরেন্টের পার্টি হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঠিকানার সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীনের সভাপতিত্বে সভায় সম্পাদকবৃন্দ নিজ নিজ সংবাদপত্রের সর্বশেষ অবস্থা তুলে ধরেন। আমেরিকার বর্তমান মুদ্রাস্ফীতি ও মূল্যস্ফীতির মধ্যেও বিজ্ঞাপনদাতারা যে সংবাদপত্রের পৃষ্ঠপোষকতা করে যাচ্ছেন, সেজন্য সম্পাদকদবৃন্দ তাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সেই সঙ্গে সংবাদপত্রের ওপর আস্থা ধরে রাখায় পাঠকদেরও ধন্যবাদ জানানো হয়।
সভায় সম্প্রতি ঠিকানা সম্পর্কে বাংলাদেশ প্রতিদিনের নিউইয়র্ক সংস্করণের নির্বাহী সম্পাদক লাবলু আনসারের করা বিরূপ মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। এডিটর্স কাউন্সিলে উপস্থিত সম্পাদকবৃন্দ লাবলু আনসারের এমন অর্বাচীন বক্তব্যে বিস্ময় প্রকাশ করে নিন্দা জানান।
বৈঠকে সম্পাদকমণ্ডলীর আলোচনায় পুনর্বার উঠে আসে বাংলাদেশ কমিউনিটির নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা আজ যে মূলধারায় মাথা তুলে দাঁড়িয়ে নানা অর্জনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও প্রবাসীদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে তুলেছেন, তার মূলেও অন্যতম ভূমিকা পালন করেছে এবং এখনো করে চলেছে স্থানীয় এসব সংবাদপত্র। কারণ সেই নব্বইয়ের দশক থেকে নতুন প্রজন্মের সন্তানের পিতামাতাকে সংবাদ সরবরাহের মধ্য দিয়ে শিক্ষাক্ষেত্রে সার্বিকভাবে উদ্বুদ্ধ করে আসছে বাংলা ভাষার সংবাদপত্রগুলো।
আলোচনায় সম্পাদকবৃন্দ আরো উল্লেখ করেন, কমিউনিটিতে যখন কোনো সংগঠন নতুন ইমিগ্র্যান্টদের গাইড করার তেমন কোনো প্রচেষ্টা গ্রহণ করেনি, তখন সংবাদপত্রগুলোই সেই দায়িত্ব পালন করেছে এবং এখনো করছে।
সম্পাদকবৃন্দ ভবিষ্যতেও সমাজসেবার এই ধারা অব্যাহত রাখবেন বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সেই সঙ্গে তারা সব বাংলাদেশিকে অভিনন্দন জানান।
সভায় বিজ্ঞাপনের বাজার সম্প্রসারণের ওপর গুরুত্বারোপ করে বলা হয়, সম্প্রতি বাংলাদেশিদের অনেক বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উদ্বোধন হচ্ছে নিউইয়র্কে। তাদের প্রতিষ্ঠাকল্পে সংবাদপত্রগুলো আরো কী ভূমিকা রাখতে পারে, তা খতিয়ে দেখতে হবে।
তারা বলেন, যেসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সংবাদপত্রের সহযোগিতা পেয়েছে, তারা আজ নিউইয়র্কের মতো বহুজাতিক সিটিতে সুপ্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী হিসেবে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছে।
আলোচনায় সম্পাদকবৃন্দ বলেন, নিউইয়র্কে আমেরিকার সর্বাধিক সংখ্যক বাংলাদেশি বাস করা সত্ত্বেও কেবল সংবাদপত্রগুলোর অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালনের কারণে সেই অর্থে বড় বড় দুর্নীতি বা প্রতারণার ঘটনা নেই বললেই চলে। যারা তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে নিউইয়র্ক থেকে বাংলা ভাষায় সংবাদপত্র প্রকাশনার মাধ্যমে এই কমিউনিটি গড়ে তুলতে অবদান রেখে চলেছেন, তাদের সেই অবদানের ইতিহাস রচনার সময় এসে গেছে বলে মন্তব্য করেন।
এডিটর্স কাউন্সিলের সভায় উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীন, সাপ্তাহিক বাঙালীর সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, সাপ্তাহিক পরিচয় সম্পাদক নাজমুল আহসান, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক আবু তাহের, সাপ্তাহিক বাংলাদেশ সম্পাদক ডা. এম ওয়াজেদ খান, সাপ্তাহিক জন্মভূমি সম্পাদক রতন তালুকদার, সাপ্তাহিক আজকাল সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো ও সাপ্তাহিক প্রবাস সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ।