ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট দল ঘোষণা

টেস্টে ফিরলেন সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্ট : ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ওপেনার তামিম ইকবাল। গত ১০ দিন মিরপুরের অ্যাকাডেমি মাঠে অনুশীলনও করেছেন এ বাঁ-হাতি ওপেনার। তার বাম হাতের আঙুলের চোট সারলেও প্রস্তুতির সময় নতুন করে পাঁজরের চোট পাওয়ায় দলে ফেরার পথটা দীর্ঘায়িত হলো আরো। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে প্রথম টেস্টেই ফিরছেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ২২ নভেম্বর চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট। সাকিবকে অধিনায়ক করে ১৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। গত ১৭ নভেম্বর দুপুরে এক ই-মেইল বার্তায় টেস্ট স্কোয়াডের কথা জানিয়েছে বিসিবি।
টেস্ট দল নিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আমাদের বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ একটি সিরিজ হবে। এখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ নেই। দল গঠনে জিম্বাবুয়ে সিরিজ ও ঘরোয়া ক্রিকেটের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করা হয়েছে। কোচ ও অধিনায়কের সঙ্গে আলোচনা করেই আমরা দল দিয়েছি। আমরা ওপেনার তামিমকে দলে যুক্ত করতে কিছুটা সময় নিয়েছিলাম। কিন্তু এখনই তাকে দলে নিয়ে তার পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার পথ বাধাগ্রস্ত করতে চাইনি। দ্বিতীয় টেস্টের আগে আমরা আবারো দল ঘোষণা করব। সে সময় তামিমের ফেরার বিষয়টি সামনে আসবে।’ প্রথম টেস্টের ঘোষিত দলে অনেক দিন পর ফিরেছেন টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার। টেস্টে অভিষেক না হলেও ঘোষিত টেস্ট স্কোয়াডে দ্বিতীয়বারের মতো ডাক পেয়েছেন তরুণ অফ স্পিনার নাঈম হাসান।
সদ্যসমাপ্ত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছেন পাঁচ ক্রিকেটার। তারা হলেনÑ ওপেনার লিটন দাস, ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত, পেসার আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, শফিউল ইসলাম ও স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। এই পাঁচ ক্রিকেটার গত ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ম্যাচগুলোয় অংশ নেন।
এবার জাতীয় লিগে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পুরস্কার পেয়েছেন সৌম্য ও নাঈম। সৌম্য তার ১০ টেস্টের সর্বশেষটি খেলেছেন গত বছরের অক্টোবরে, স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে, ব্লুমফন্টেইনে। এরপর ওয়ানডে দলেও অনিয়মিত হয়ে পড়েন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে সুযোগ পেয়ে করেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। এ ছাড়া এবার জাতীয় লিগে সময়টা ভালো কেটেছে সৌম্যের। পাঁচ ম্যাচের আট ইনিংসে ৬৭২৮ গড়ে করেন তৃতীয় সর্বোচ্চ ৪৭১ রান। এ দিকে ছয় ম্যাচে ২৮ উইকেট নিয়ে লিগের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ছিলেন নাঈম।
এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদ না পেলেও টেস্ট দলে নাঈম নতুন মুখ নয়। এ বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ডে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলার সময় তাকে হঠাৎই উড়িয়ে এনে শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াডভুক্ত করা হয়। যদিও খেলার সুযোগ পাননি ১৭ বছর বয়সী এই অফ স্পিনার। জাতীয় লিগের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিকে আবারো রাখা হয়েছে স্কোয়াডে। ১৫টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচে ৪৮টি উইকেট নিয়েছেন ছয় ফুট উচ্চতার এ স্পিনার।
স্পিনার নাঈম প্রসঙ্গে দলের স্পিন কোচ সুনীল জোশী বলেন, ‘আমি গত বছর ধরে তার বোলিং পর্যবেক্ষণ করছি। বিকেএসপিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে তার বোলিং দেখেছি। তার বোলিংয়ে অনেক বৈচিত্র্য আছে। সে ছয় ফুট উচ্চতার একজন অর্থডক্স বোলার। উইকেট থেকে সে বাউন্স আদায় করতে পারে। আশা করছি সুযোগ পেলে সে ভালো করবে।’
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সবে শেষ হওয়া সিরিজে সুপার ফ্লপ ছিলেন দুই ওপেনার লিটন দাস ও ইমরুল কায়েস। চার ইনিংসে লিটনের রান ৯, ২৩, ৯ ও ৬। দুই টেস্টে ইমরুলের ব্যাট থেকে এসেছে যথাক্রমে ৫, ৪৩, ০ ও ৩ রান। সর্বশেষ ২০ ইনিংসে তার কোনো ফিফটি নেই, সেঞ্চুরি নেই ৩০ ইনিংসে। তার পরও বাঁ-হাতি ওপেনার টিকে গেছেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে দুটো সেঞ্চুরি করেন ইমরুল। বাদ পড়েছেন তরুণ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তু। জিম্বাবুয়ে সিরিজের সিলেট টেস্টে ৫ ও ১৩ রান করার পর মিরপুরে খেলার সুযোগ পাননি শান্ত। স্কোয়াডে পেসার কেবল দুজন, মুস্তাফিজুর রহমান ও সৈয়দ খালেদ আহমেদ।
চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ফিরবে দ্বৈরথ। ৩০ নভেম্বর শুরু দ্বিতীয় টেস্ট।