কারাগারে যৌন নিপীড়ন চালায় সৌদি

বিশ্বচরাচর ডেস্ক : মানবাধিকার কর্মীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায় সৌদি আরব। আর নারী মানবাধিকার কর্মীদের ওপর চালায় যৌন নির্যাতন। চলতি বছরের মে মাস থেকে গ্রেফতারকৃত বহু নারী ও পুরুষ অধিকার কর্মীর ওপর এ ধরনের বর্বরতা চালিয়েছে সৌদি প্রশাসন। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন ‘অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’ ও ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’ এ অভিযোগ তুলেছে। খবর এএফপি, সিএনএনের।
তিনজন ভুক্তভোগীর সাক্ষ্য উল্লেখ করে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, মানবাধিকার কর্মীদের কারাগারে ধরে নিয়ে গিয়ে ইলেকট্রিক শক ও বেধড়ক পিটুনি দেয়া হতো।
এর মাধ্যমে বেশ কিছুদিন তাদের দাঁড়ানোর ক্ষমতা পর্যন্ত হারিয়ে যেত। তাদের শরীরে মারের দাগ দেখা যেত এবং হাতের ওপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ থাকত না। এমনকি, এর মধ্যে একজন ভুক্তভোগী মানবাধিকার কর্মী কারাগারের ভেতর একাধিকবার আত্মহননের চেষ্টা পর্যন্ত করেছেন।
বিবৃতিতে জানানো হয়, একজন নারী মানবাধিকার কর্মী জানিয়েছেন, তাকে একাধিকবার মুখে মাস্ক পরিহিতদের কাছে যৌন নিপীড়নের শিকার হতে হয়েছে।
অন্য আরেকটি বিবৃতিতে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানায়, মে মাসের শুরুতে আটককৃত তিনজন নারী মানবাধিকার কর্মীর ওপর তদন্ত চালিয়ে জানা যায়, তাদেরকে মাঝে মধ্যেই ইলেকট্রিক শক ও বেত্রাঘাত করা হয়েছে। এ ছাড়া জোর করে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করা হতো।
সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে জানানো হয়, সৌদি আরবের শাসনব্যবস্থায় নির্যাতনের কোনো সুযোগ নেই। অপরাধী সে নারী হোক বা পুরুষ, তদন্ত চলাকালে তার ওপর কোনোরকম শারীরিক, যৌন ও মানসিক নির্যাতন করার প্রশ্নই ওঠে না।
খাশোগি হত্যার পর প্রথম বিদেশ সফরে যুবরাজ : সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমান আঞ্চলিক সফরের শুরুতে গত ২২ নভেম্বর সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছেছেন। আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন জায়েদ সংযুক্ত আরব আমিরাতে (ইউএই) সালমানকে স্বাগত জানান। সমমনা এ দুই যুবরাজ ‘আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক’ উন্নয়ন এবং ‘মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলের চ্যালেঞ্জ ও হুমকি’ নিয়ে আলোচনা করেন।
আঞ্চলিক সফরের ক্ষেত্রে এটি ছিল তার প্রথম যাত্রাবিরতি। জামাল খাসোগির হত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশটি সংকটে পড়ার পর এটিই তার প্রথম আনুষ্ঠানিক বিদেশ সফর।
সৌদি আরবের সরকারি বার্তা সৌদি প্রেস এজেন্সি জানায়, রয়্যাল কোর্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রিন্স মোহাম্মাদ তার বাবা বাদশাহ সালমানের অনুরোধে ভ্রাতৃপ্রতিম কয়েকটি আরব দেশ সফর করবেন। তবে বিবৃতিতে দেশগুলোর নাম বলা হয়নি।