খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার সংক্রান্ত প্রতিবেদন ২৫ এপ্রিল

খালেদা জিয়ার ফাইল ছবি

ঢাকা : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারসংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৫ এপ্রিল দিন ধার্য করেছেন আদালত। মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে জন্মদিন পালনের মামলায় এই প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। গত ২৪ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম মো. খুরশীদ আলম এ আদেশ দেন।

এ দিন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জারি করা গ্রেফতার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু গুলশান থানার পুলিশ তা দাখিল না করায় আদালত পরবর্তী ওই দিন ধার্য করেন।

আদালত সূত্র জানায়, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এ মামলাটি করেন। ওই বছরের ১৭ নভেম্বর আদালত খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, খালেদা জিয়ার একাধিক জন্মদিন নিয়ে ১৯৯৭ সালে ১৯ ও ২২ আগস্ট দুই জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী তার এইচএসসি পরীক্ষার মার্কশিট অনুযায়ী জন্মতারিখ ১৯৪৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর। ১৯৯১ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে একটি দৈনিকে তার জীবনী নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয় জন্মদিন ১৯৪৫ সালের ১৯ আগস্ট। তার বিয়ের কাবিননামায় জন্মদিন ১৯৪৪ সালের ৪ আগস্ট।

সর্বশেষ ২০০১ সালে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অনুযায়ী তার জন্মদিন ১৯৪৬ সালের ৫ আগস্ট। বিভিন্ন মাধ্যমে তার পাঁচটি জন্মদিন পাওয়া গেলেও কোথাও ১৫ আগস্ট জন্মদিন পাওয়া যায়নি। এ অবস্থায় তিনি পাঁচটি জন্মদিনের একটিও পালন না করে ১৯৯৬ সাল থেকে ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকীর জাতীয় শোকদিবসে আনন্দ উৎসব করে জন্মদিন পালন করে আসছেন। শুধু বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সুনাম ক্ষুণœ করার জন্য তিনি ওই দিন জন্মদিন পালন করেন।

৪২ জনকে পুড়িয়ে হত্যা মামলার প্রতিবেদন ২৫ এপ্রিল : এ দিকে সারা দেশে হরতাল-অবরোধে ৪২ জনকে পুড়িয়ে হত্যা ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় খালেদা জিয়াসহ চার আসামির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২৫ এপ্রিল দিন ধার্য করেছেন আদালত। গত ২১ মার্চ এ মামলার প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। এ দিন গুলশান থানা পুলিশ তা দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম মো. খুরশীদ আলম প্রতিবেদন দাখিলের নতুন দিন ধার্য করেন। মামলার অপর আসামিরা হলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. এমাজউদ্দীন আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী ও স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মিয়া।

বড়পুকুরিয়া দুর্নীতি মামলায় চার্জ শুনানি ২৬ এপ্রিল : বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ সব আসামির বিরুদ্ধে চার্জ শুনানির জন্য আগামী ২৬ এপ্রিল দিন ধার্য করেছেন আদালত। গত ২৪ মার্চ রাজধানীর বকশিবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত-২ এর বিচারক হোসনে আরা বেগম এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্র জানায়, কনসোর্টিয়াম অব চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইম্পোর্ট অ্যান্ড এক্টপোর্ট কর্পোরেশনের (সিএমসি) সঙ্গে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির উৎপাদন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণ চুক্তির মধ্য দিয়ে সরকারের প্রায় ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। এ অভিযোগে ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক মো. সামছুল আলম বাদী হয়ে রাজধানীর শাহবাগ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।