খুঁজতে থাকি

মোরশেদ খন্দকার :

তাকে পাই না বলে খুঁজতে থাকি সারা বেলা, অষ্টপ্রহর।
খুঁজতে খুঁজতে এক পৃথিবীর সকল ভূমি লন্ডভন্ড!
তবু তাকে খুঁজতে থাকি সকাল-সন্ধ্যা, বইয়ের পাতায়
রাত-বিরেতে লেখার খাতায় শব্দ ভুলে জাবর কাটি।
একলা ঘরে হঠাৎ ইঁদুর দৌড়ে আসে, তাকিয়ে দ্যাখে
উড়নচণ্ডী গৃহস্থালি, সোফায় শুয়ে স্বপ্ন দেখি, দিবাস্বপ্ন।

চন্দ্র যখন জ্যোৎস্না ছড়ায় তখন তাকে খুঁজতে থাকি।
খুঁজতে থাকি আকাশজুড়ে, তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে
পদ্মপুকুর। শাপলা ফুলে, ঝিলের উপর মুখখানি তার
ভেসে থাকে। দেয় না দেখা, পালিয়ে বেড়ায় দূর অজানায়।
তবু তাকে খুঁজতে থাকি চায়ের কাপে, সাতসকালে ঘাসের
ডগায়। ভরদুপুরে, বন-বাদাড়ে খুঁজতে খুঁজতে ক্লান্ত হয়ে
ঘুমিয়ে পড়ি। তবু তাকে খুঁজতে থাকি। খুঁজতে থাকি পাহাড়
চূড়ায়, ঈগল চোখে। দুধ-সাদা মেঘ আছড়ে পড়ে ক্লান্ত দেহে।
তখন তাকে খুঁজতে থাকি মেঘের ভেলায়। চোখ ভিজিয়ে
বৃষ্টি ঝরে, আঁধার নামে, অচিন আঁধার।
তবু তাকে খুঁজতে থাকি, প্রাচীনপুরীর দূর অজানায়
পাই না তাকে, হারিয়ে গেছে কোন অবেলায় নদীর ধারে
মরা জ্যোৎস্নায় খুঁজতে থাকি প্রাগৈতিহাসিক নগরজুড়ে।
চমকে দেখি সেও খুঁজছে পথের বাঁকে অচিন আঁধার।