গীতিকবিতা: করোনা ঘি বেকার সংগীত

আবুল কালাম আজাদ

বাঁচার জন্য একটা কিছু করতে হয়
একটা কিছু করেই বিশ্বে বাঁচতে হয়
কেউ খাওয়ায় না ফিরি ফিরি
অন্যের ঘাড়ে বসে বসে যায় না করা মাস্তিগিরি \
বাপের হোটেলেও বাপে
বসায় খাওয়ায় না চিরদিন,
আঁচলেরও ঠাঁই যে মায়ের
বেকার ছেলে হারায় দিন দিন।
ভাইবোন পরিজন আত্মীয়স্বজন
সবাই বলে একটা কিছু করো
দিন যাবে না এমনি করে সারা জীবন ঘুরতি-ফিরি?
চাকরি-বাকরির চেষ্টা তো আর কম করলাম না আমি
টাকার জোর নাই মামার জোর নাই
চাকরি আমি পেলাম না তাই
চাকরি হলো সোনার হরিণ সোনার চেয়ে দামি
কথার জ্বালা সয়ে সয়ে
আমার বাঁচাই যে হলো দায়,
খোটাগুলো লাগছে বিষের
কাঁটার মতো নরম মনটায়।
প্রেম যায় ছেড়ে যায় ক্ষুব্ধ সে বেজায়
যাবার বেলা মনটা শুধু কাঁদে
কেউ বোঝে না বলো না কারে দেব দেখায় বুকটা-চিরি?