অভিজ্ঞতা অর্জন না আনন্দ ভ্রমণ

চীন সফরের বাজেট ২৫ লাখ টাকা

স্পোর্টস রিপোর্ট : এবার কাবাডি ও ভলিবল অবকাঠামো উন্নয়নের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য চীন সফরে যাচ্ছেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ছয়জন কর্মকর্তা। সরকারি এ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব রয়েছেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব (ক্রীড়া) ওমর ফারুক। এই প্রতিনিধিদলটির চীন সফরের বাজেট ২৫ লাখ টাকা। গত ১ নভেম্বর রাতে চীনের উদ্দেশে তারা ঢাকা ত্যাগ করেছে।

প্রতিনিধি দলে রয়েছেনÑ পরিকল্পনা কমিশনের সহকারী প্রধান (এসইআইডি) স্বপন কুমার ঘোষ, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. শুকুর আলী, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উপসচিব অরুণ কুমার ম-ল, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের উপপরিচালক (বাস্তবায়ন, পর্যবেক্ষণ এবং মূল্যায়ন) মৌসুমী হাবিব এবং বাংলাদেশ ভলিবল ফেডারেশনের যুগ্ম-সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি।

ক্রীড়া অবকাঠামো তৈরির অভিজ্ঞতা অর্জনের নামে কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ এবারই প্রথম এমনটি নয়। তার আগেও এমন ছুতোয় কর্তারা বিদেশ ভ্রমণ করেছেন। এর আগে গত বছর পূর্বাচলে ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণের জন্য রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) কাছ থেকে জায়গা বরাদ্দ পেয়েই অস্ট্রেলিয়া ভ্রমণে গিয়েছিল একটি প্রতিনিধি দল। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের তৎকালীন সচিব আখতার উদ্দীন আহমেদের নেতৃত্বে সফরকারী দলের শোভা বর্ধন করেছিলেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের তৎকালীন সচিব অশোক কুমার বিশ্বাসসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের আরেক কর্মকর্তা। লাখ লাখ টাকা ব্যয়ের ওই সফরের ফলাফল শূন্য। কারণ, পূর্বাচলে এখন স্টেডিয়াম নির্মাণ হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অধীনে। ফলে অস্ট্রেলিয়া সফর করে জ্ঞান অর্জনকারীদের কোনো ভূমিকা থাকছে না। ওই সফরকারী দলের বেশির ভাগ কর্মকর্তা এখন ক্রীড়া মন্ত্রণালয়েও নেই। কেউ অবসরে গেছেন, কেউ বদলি হয়েছেন। এবার কাবাডি ভলিবলের নামে বিদেশ ভ্রমণ।

কাবাডি ও ভলিবল স্টেডিয়ামের অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের প্রধান কাজ হচ্ছে দুই ফেডারেশনের জন্য ছয়তলা দুটি ভবন নির্মাণ। বর্তমানের ভবনটি ভেঙে সেখানে নির্মাণ করা হবে একই আদলের দুটি নতুন ভবন। এর পাশাপাশি কাবাডি ও ভলিবল স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে শেড, ভিআইপি বক্স, ম্যাটসহ আরো কিছু সংস্কারকাজ রয়েছে। আবাসিক ক্যাম্প করার লক্ষ্যে দুই ভবনেই দুটি করে চারটি ফ্লোরে হোস্টেল নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া আধুনিক ইকুইপমেন্টসহ জিমনেশিয়ামের ব্যবস্থা থাকবে। পুরো কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯ কোটি টাকা। এ জন্য দরপত্রও সম্পন্ন হয়েছে। এই নভেম্বরেই কাজ শুরুর কথা রয়েছে। মজার বিষয় হচ্ছে বিদেশ সফরের দলে কাবাডির কেউ নেই। ভলিবলের যুগ্ম সম্পাদককে রাখা হলেও বিস্তারিত কিছুই বলতে পারলেন না তিনি। তার কথায়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে আমাকে টিকিট পাঠিয়েছে। গত ১ নভেম্বর রাতে ফাইট। ওখানে গিয়ে কী করব তা এখনো জানি না।

চীন সফরের যৌক্তিকতা নিয়ে এনএসসির পরিচালক শুকুর আলী জানান, কম জায়গার মধ্যে কিভাবে সর্বাধিক সুযোগ সুবিধাসম্পন্ন আধুনিক অবকাঠামো নির্মাণ করা যায় মূলত সেটি দেখতেই এই সফর।