জনপ্রিয় শিশুশিল্পী ‘দীঘি’ এবার নায়িকা চরিত্রে

ঠিকানা অনলাইন : চলচ্চিত্র পরিবারের সন্তান দীঘি। সুব্রত আর প্রয়াত চলচ্চিত্র অভিনেত্রী দোয়েলের একমাত্র মেয়ে দীঘি। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের আগে গ্রামীণফোনের একটি বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক আলোচিত হয়। কাজী হায়াত পরিচালিত ‘কাবুলিওয়ালা’ তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র। প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই ২০০৬ সালে শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পায়। এরপর ‘দাদিমা’, ‘চাচ্চু’, ‘বাবা আমার বাবা’, ‘১ টাকার বউ’ ও ‘অবুঝ শিশু’র মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করে দর্শক মনে জায়গা করে নেয় দীঘি। এক সময়ের জনপ্রিয় এই শিশুশিল্পী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরুর পর মাঝে আট বছরের বিরতি ভেঙে নায়িকার হিসেবে চলচ্চিত্রে ফিরলেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি।

জানা যায়, শাপলা মিডিয়ার প্রযোজনায় ‘টুঙ্গিপাড়ার মিঞা ভাই’ শিরোনামে চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে গত ৬ সেপ্টেম্বর অংশ নিলেন তিনি; তার বিপরীতে অভিনয় করছেন নবাগত শান্ত খান।

বাবা-মা’র সাথে ‘প্রার্থনা ফারদিন দীঘি’ -ফাইল ছবি

এর আগে কাজী হায়াতের ‘কাবুলীওয়ালা’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে শিশু শিল্পী হিসেবে বড়পর্দায় অভিষেক হওয়ার পর ৩০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করা এ শিল্পী তিনবার শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

২০১২ সালে চিত্রপরিচালক মনতাজুর রহমান আকবরের ‘ছোট্ট সংসার’ চলচ্চিত্রে শিশু শিল্পী হিসেবে অভিনয় করেন তিনি। এরপর আর কোনও চলচ্চিত্রে দেখা যায়নি তাকে।

দীর্ঘ আট বছর পর চলচ্চিত্রে ফিরে দীঘি বলেন, “৮ টা বছর পর ডিরেক্টরের মুখ থেকে অনেক জোরে রোলিং, ক্যামেরা, অ্যাকশন শুনলাম। এই তিনটা শব্দ যে আমার কাছে কী এইটা আমি কাউকে প্রকাশ করে বলতে পারবো না। নায়িকা হিসেবে প্রথম সিনেমা আমার ‘টুঙ্গিপাড়ার মিঞা ভাই’।”

বিশেষ এই দিনে তার মা প্রয়াত চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী দোয়েলকে স্মরণ করেছেন তিনি।

এক ফেইসবুক স্ট্যাটাসে দীঘি বলেন, “আজকের দিনটা যেই মানুষ টা কে দেখাতে চেয়েছি আমি আর যেই মানুষটা আমাকে এই জায়গাটা তে দেখতে চেয়েছে,সেই মানুষ টাই আমার সাথে আজকে ছিল না। গত রাত থেকে এখনো পর্যন্ত আমি চোখের পানি ধরে রাখতে পারছিনা। আজকে যদি আমাকে মানুষ নতুন ভাবে নায়িকা নামে চিনে থাকে,সেইটা শুধু মাত্রই আমার ‘মায়ের জন্য। সিনেমার প্রতি ভালোবাসা সবসময় ছিলো, আজীবন থাকবে।”

চলচ্চিত্রটির প্রযোজক ও পরিচালক সেলিম খান গ্লিটজকে জানান, সোমবারও দীঘি এফডিসিতে দৃশ্যধারণে অংশ নিয়েছেন। মঙ্গলবার থেকে ঢাকার একাধিক লোকেশনে দৃশ্যধারণ হবে ছবিটির।

এর আগে ছবির কাস্টিং ডিরেক্টর শামীম আহমেদ রনীর জ্বর-সর্দির কারণে ছবির শুটিং স্থগিতের খবর এসেছিল বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

সে বিষয়ে সেলিম খান বলেন, “রনীও শুটিংয়ে আছেন। সবকিছু ঠিকঠাক মতো চলছে। কারও মধ্যে কোনও আতঙ্ক নেই। আশা করছি, টানা শুটিং করতে পারব ছবিটির।”

এটি ছাড়াও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার পাঁচটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কথা রয়েছে দীঘি ও শান্ত খানের। এর মধ্যে ‘ধামাকা’ নামে একটি চলচ্চিত্র পরিচালনা করবেন মালেক আফসারী। ‘যোগ্য সন্তান’ নামে আরেকটি চলচ্চিত্র নির্মাণের দায়িত্বে থাকছেন কাজী হায়াৎ।

ঠিকানা/এসআর