জন্মসনদ হবে লিঙ্গ নিরপেক্ষ

ঠিকানা রিপোর্ট: নতুন বছরে লিঙ্গ পরিচয়ের নতুন আইন কার্যকর হয়েছে নিউইয়র্কে। ১ জানুয়ারি থেকে চালু হওয়া আইনে শিশুর জন্ম সনদে ছেলে, মেয়ে বা নিরপেক্ষ লিঙ্গ ব্যবহার করা যাবে।
এর আগে জন্ম নেওয়া শিশুদের মেল (এম) বা ফিমেল (এফ) অক্ষর দিয়ে চিহ্নিত করা হতো। এখন থেকে জন্ম নেয়া শিশুর জন্মসনদে নিরপেক্ষ লিঙ্গের চিহ্ন (এক্স) ব্যবহার করা যাবে। আগের কোনো সনদের কেউ কোনো লিঙ্গ শনাক্তকরণের চিহ্ন ইচ্ছে করলে বদলে নিতে পারবেন।
২০১৪ সাল থেকেই নিউইয়র্কে তৃতীয় লিঙ্গ বা সমলিঙ্গের লোকজন নিজের লিঙ্গ পরিচয় বদলে দিতে পারেন। এ জন্য ডাক্তারি সনদ ও হলফনামার প্রয়োজন হতো। এখন থেকে এর কিছুই লাগবে না। নিজে থেকে কেবল ঘোষণা দিতে হবে।
নিউইয়র্ক সিটির মেয়র ডি ব্লাজিও বলেছেন, ট্রান্সজেন্ডারসহ বা লিঙ্গ পরিচয়ে কে কীভাবে শনাক্ত হবে, তা তার নিজস্ব ব্যাপার। প্রত্যেকেই তার নিজস্ব মর্যাদায় পরিচিত হওয়ার সমান সুযোগ পাবে নিউইয়র্কে।
উল্লেখ্য, আমেরিকার আরও কয়েকটি অঙ্গরাজ্যেও সাম্প্রতিক সময়ে লিঙ্গ পরিচয়ে এমন উদার আইন চালু করা হয়েছে। গত তিন দশকের টানা আন্দোলনের মাধ্যমে সমলিঙ্গের সমর্থক নাগরিক সংগঠনগুলো এ বিষয়টিকে তাদের অর্জন হিসেবে দেখছে।
সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুর ক্ষেত্রে তার মা-বাবা চাইলে সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় হিসেবে ‘এক্স’ বেছে নিতে পারবেন। ১ জানুয়ারি নিউইয়র্ক নগরের স্বাস্থ্য বিভাগ নতুন এ আইন কার্যকরের ঘোষণা দেয়। গত বছরের জুনে মেয়র বিল ডি ব্লাজিও ও নগর পরিষদের স্পিকার কোরি জনসন আইনটির প্রস্তাব করেন। একই বছরের অক্টোবরে আইনটি পাস হয় পরিষদে।
নগরীর স্বাস্থ্য বিভাগ এ সম্পর্কিত এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নিউইয়র্কে জন্ম নেয়া ব্যক্তিরা লিঙ্গ পরিচয় বদলাতে চাইলে এ বিষয়ে একটি নোটারি এ্যাফিডেভিট জমা দিতে হবে। সবার সহযোগিতার জন্য এ্যাফিডেভিটের একটি নমুনা অনলাইনে দেয়া হয়েছে। জন্মসনদে এত দিন সাধারণভাবে লৈঙ্গিক পরিচয় লিখে দেয়া হলেও স্বাস্থ্য বিভাগ লক্ষ্য করেছে যে, জন্ম সনদে উল্লেখিত লিঙ্গ পরিচয়ের সঙ্গে অনেক সময় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নিজের লৈঙ্গিক বোধটি মেলে না। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে জন্ম সনদে পছন্দ মতো লৈঙ্গিক পরিচয় গ্রহণের সুযোগ রেখেছে বিভাগ।