জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সংবাদ সম্মেলন ২৮ জানুয়ারি

ঠিকানা রিপোর্ট : প্রবাসের সবচেয়ে বড় আঞ্চলিক সংগঠন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন উত্তর আমেরিকার বাড়ি কেনা নিয়ে সৃষ্ট অচলাবস্থা এখনও দূর
হয়নি। কবে এই সংকটের সমাধান হবে কেউ জানে না। তবে সাধারণ সদস্যরা চান ঐতিহ্যবাহী জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের মর্যাদা ও সুনাম অক্ষুণ্ন থাকুক।
এদিকে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের উদ্ভূত পরিস্থিতি সাধারণ সদস্য ও বাংলাদেশি কমিউনিটিকে অবহিত করতে আগামী ২৮ জানুয়ারি শনিবার সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন বর্তমান সভাপতি বদরুল খানসহ কার্যকরী কমিটি। সংবাদ সম্মেলনে কার্যকরী কমিটির অধিকাংশ বর্তমান -সাবেক কর্মকর্তা ও সদস্য উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।
গত ২২ জানুয়ারি রোববার ব্রঙ্কসে অনুষ্ঠিত কার্যকরী কমিটির বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনের পক্ষে মত দেন অধিকাংশ সদস্য। সভায় বেশ কয়েকজন উপদেষ্টা, সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং বর্তমান কমিটির সভাপতি বদরুল খানসহ ১৩ জন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
এখানে উল্লেখ্য, বর্তমান সভাপতি বদরুল খানসহ কার্যকরী কমিটির অধিকাংশ সদস্যের অভিযোগ, সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে সাধারণ সম্পাদক ব্যক্তিগত নামে কেনা ভবন সংগঠনের নামে চালানোর চেষ্টা করছেন। নিউইয়র্কের এস্টোরিয়ার ৩৬ স্ট্রিটের কাছে ৩১ স্ট্রিটে একটি ভবন কেনে সদ্য বিদায়ী কমিটি। মইনুল ইসলাম ওই কমিটির কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। বর্তমানে তিনি নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে বর্তমান কমিটি ১০০ দিনের মধ্যে জালালাবাদ ভবন কেনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু দায়িত্ব গ্রহণের একদিন আগেই ভবন কেনার কথা ঘোষণা করে বিদায়ী কমিটি। এ নিয়ে নবনির্বাচিত কার্যকরী কমিটি বিভক্ত হয়ে পড়ে। প্রবাসে সিলেটবাসী মানেই দলমত নির্বিশেষে ঐক্য। কিন্তু জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের বর্তমান পরিস্থিতি সেই ঐক্যকে বিনষ্ট করছে বলে অভিযোগ করছেন সাধারণ সদস্যরা।