জ্যামাইকায় টিপু আলমের আঁকা ম্যুরাল উদ্বোধন

নিউইয়র্ক : জ্যামাইকার প্রধান সড়কের পাশে বসানো ম্যুরালের সামনে এর শিল্পী টিপু আলমসহ অন্যান্যরা।

ঠিকানা রিপোর্ট : ব্রঙ্কসের পর এবার কুইন্সের জ্যামাইকায় ম্যুরাল এঁকেছেন প্রবাসের জনপ্রিয় চিত্রশিল্পী ও কার্টুনিস্ট টিপু আলম। জ্যামাইকায় হিলসাইড অ্যাভিনিউর সাটফিনের তাজমহল পার্টি হলের সুপরিসর দেয়ালে বাংলাদেশের জাতীয় ফুল শাপলাসহ নদীমাতৃক বাংলাদেশকে তুলে ধরেছেন তিনি, যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘শাপলা ফোটা ঝিল।’ গত ১৩ নভেম্বর রোববার ম্যুরালের উদ্বোধন করেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই কণ্ঠযোদ্ধা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত রথীন্দ্রনাথ রায় ও কাদেরি কিবরিয়া। ম্যুরালের প্রেক্ষাপট উপস্থাপনকালে কণ্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায় বলেন, ম্যুরালের মধ্য দিয়েই মানবসভ্যতার উৎপত্তি ঘটেছে। তাই আমাদের সকলের গভীর ভালবাসা আর শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে বাংলাদেশের স্মৃতি হৃদয়পটে ভেসে উঠার সহায়ক এই ম্যুরালের প্রতি। এমন একটি পদক্ষেপ গ্রহণের জন্যে উদ্যোক্তা এবং আর্টিস্ট উভয়ের প্রতিই ধন্যবাদ জানান তিনি।

নিউইয়র্ক : অনুষ্ঠানে বিশিষ্টজনেরা।


কণ্ঠযোদ্ধা কাদেরি কিবরিয়া বলেন, এভাবে ফিতা কেটে ম্যুরালের অবমুক্তি ঘটানো আমার জীবনে প্রথম। আজীবন তা স্মৃতি হয়ে থাকবে। তাজমহল রেস্টুরেন্টের নতুন মালিক মোহাম্মদ মুরাদ বলেন, চিত্রশিল্পী টিপু আলম অনেক দিন থেকেই আমাকে বলছিলেন দেয়ালটিকে কিছু একটা দিয়ে দৃষ্টিনন্দন করার জন্য। কিন্তু আমি এটিকে সাদা রাখতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করছিলাম। অতি সম্প্রতি টিপু আলম এমন একটি প্রস্তাব নিয়ে এলেন যা দেখে মনে হলো, এটাই তো চাই। দেশে যাবার প্রয়োজন হবে না। সকাল-বিকাল এই চিত্র দেখবো আর দেশকে মনে করবো, যেখানে আমার নাড়ি পোতা।’ সাংস্কৃতিক সংগঠক গোলাম সারোয়ার হারুনের তত্ত্বাবধানে ও উপস্থাপনায় পরবর্তীতে তাজমহল পার্টি হলে দুই কণ্ঠযোদ্ধা বাংলাদেশের গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ঠিকানার প্রধান সম্পাদক মুহম্মদ ফজলুর রহমান, বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, বাংলাদেশ সম্পাদক ওয়াজেদ এ খান, সাংবাদিক ও কলামিস্ট হাসান ফেরদৌস, লেখক আহমদ মাযহার প্রমুখ।