টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ঠিকানা ডেস্ক : কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক কারবারী ও কুতুবদিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত জলদস্যু নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) ভোরে পৃথক এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক কারবারী নিহত হন। এ সময় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হন। এ সময় মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত ট্রাক, ১ লাখ ইয়াবা, দুটি অস্ত্র ও ৮ রাউন্ড বুলেট উদ্ধার করে।

মঙ্গলবার ভোরে ৪টার দিকে র‌্যাব-৭ এর একটি দল স্থলবন্দরের উত্তর পাশের ১৪ নম্বর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় যানবাহন থামিয়ে তল্লাশি করছিল। একটি ট্রাক তল্লাশির সময় মাদক কারকারীরা ট্রাক থেকে গুলিবর্ষণ করে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি করে।

গোলাগুলির এক পর্যায়ে ময়মনসিংহ সদরের কোতোয়ালি পাড়ার আবু চৌধুরী মোড়ের আব্দুল হাকিমের ছেলে আশিক জাহাঙ্গীর (৪০) ও নারায়ণগঞ্জ তেল্লাপাড়া বড় জামে মসজিদ এলাকার আব্দুল বারেকের পুত্র আরিফ হোসেন (৩১) ঘটনাস্থলে নিহত হন। এ সময় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

র‌্যাব-৭ টেকনাফ ক্যাম্পের কমান্ডার লে. মির্জা শাহেদ মাহতাব অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মাদক নির্মূলে জিরো টলারেন্স না আসা পর্যন্ত মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে।

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত জলদস্যু দিদারুল ইসলাম (৩২) নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার উত্তর অনজাখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দেশি-বিদেশি সাতটি আগ্নেয়াস্ত্র ও ২০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। র‌্যাব- কক্সবাজারের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদি হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।