ট্যাক্স ফাইলের সময় বাড়ল ১৭ মে পর্যন্ত

ঠিকানা রিপোর্ট : ট্যাক্স ফাইল করার সময় বেড়েছে এক মাস। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী ১৫ এপ্রিল ট্যাক্স ফাইল করার শেষ সময় নির্ধারণ করেছিল কিন্তু ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা রিলিফ প্যাকেজ চালু হওয়ার কারণে এখন অনেক নিয়মের পরিবর্তন আসছে। এই পরিবর্তনের কারণে মানুষ যাতে ঝামেলাহীনভাবে ট্যাক্স ফাইল করতে পারেন, সে জন্য আইআরএস ট্যাক্স ফাইল করার সময় বাড়িয়েছে এক মাসÑ১৫ মে পর্যন্ত। কিন্তু ওই দিন শনিবার হওয়ায় ১৭ মে পর্যন্ত তা বর্ধিত করা হয়েছে। জরিমানা ছাড়া সবাই এই সময়ের মধ্যে ট্যাক্স ফাইল করতে পারবেন। কেউ সময় বাড়ানোর আবেদন করলে সময় বাড়িয়ে অক্টোবরের মধ্যে ফাইল করতে পারবেন। কিন্তু যারা আবেদন করে সময় বাড়াবেন না, তাদের জরিমানা দিয়ে ট্যাক্স ফাইল করতে হবে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেডারেলের যেসব সহায়তা ও সুবিধা পাওয়া যাবে, এ জন্য আইআরএসও সফটওয়্যার আপডেট করেছে। তবে স্টেট থেকে এখনো তাদের ট্যাক্সের বিষয়ে পুরোপুরি আপডেট দিতে পারেনি। নিউইয়র্ক স্টেট থেকে এখনো পর্যন্ত বেকার ভাতার ১০ হাজার ২০০ ডলারের ওপর যে ট্যাক্স মওকুফের সুবিধা রয়েছে, সেটি ফেডারেলে এখনই পাওয়া যাবে। কিন্তু নিউইয়র্ক স্টেট থেকে বেকার ভাতার ১০ হাজার ২০০ ডলারের ওপর যে ট্যাক্স জনপ্রতি মওকুফ পাওয়া যাবে, সে ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা আসেনি। এটি হলে তখন এই অঙ্কের ওপর ট্যাক্স দিতে হবে না। এ কারণে তারা বলছেন, নিউইয়র্ক স্টেট থেকে এ ব্যাপারে যে নির্দেশনা আসবে, সেটি অনুসরণ করতে হবে। তারা পরামর্শ দিচ্ছেন, এখন যারা ট্যাক্স ফাইল করতে চাইছেন, তারা তড়িঘড়ি করে ফাইল সাবমিট না করে এখন ফাইল রেডি করে রাখতে পারেন। এরপর স্টেট তাদের সফটওয়্যার আপডেট করলে ও ঘোষণা দিলে তারা ফাইল করলে ভালো হবে।
সব মিলিয়ে অনেকেই ট্যাক্স ফাইল করার জন্য অপেক্ষা করছেন। কিন্তু ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা রিলিফ প্যাকেজ পাসের পর কিছু বাড়তি সুবিধা মানুষকে সরকার থেকে দেওয়ার কারণে এখন বেশ কয়েকটি বিষয়ে ঘোষণা আসছে। আইআরএস ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে, একজন হলে ১০ হাজার ২০০ আর ম্যারিড ফাইলিং জয়েন্টলি হলে ২০ হাজার ৪০০ ডলার পর্যন্ত ট্যাক্স মওকুফ পাওয়া যাবে। কীভাবে রিপোর্ট করতে হবে, তা-ও বলেছে। তবে যারা ফাইল করে ফেলেছেন, তাদেরকে এখন কিছু করতে হবে না।
বিশেষজ্ঞরা আরো বলেছেন, ২০২০ সালের ট্যাক্স ফাইল একটু কঠিন হবে। কারণ অনেকেই তার নিজের চাকরি কিংবা ব্যবসার ইনকামের বাইরে বেকার ভাতা পেয়েছেন, আবার কেউ কেউ এর পাশাপাশি পিপিপি লোন নিয়েছেন। এসবিএ লোনও নিয়েছেন অনেকে। ফলে তাদেরকে ট্যাক্সে ফাইলে তার সব আয় রিপোর্ট করতে হবে। সবকিছু করতে হবে নির্ভুলভাবে। যারা নির্ভুলভাবে ফাইল করবেন না, তাদেরকে পরবর্তী সময়ে আইআরএসের অডিটে পড়তে হতে পারে।