ট্রাম্পের প্রতি ওবামার কৌশলী উপহাস

ঠিকানা ডেস্ক: আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম আফ্রিকান-আমেরিকান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একজন অনলবর্ষী বক্তা এবং বক্তব্যের ভাষা চয়নে সূক্ষ্ম কারিগর হিসেবে সুুপরিচিত। টেক্সাসের এল পাডো ওয়ালমার্ট এবং ওহাইওর ডেটন ম্যাস কিলিংয়ের পটভূমিতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্যের জন্য অত্যন্ত সুকৌশলে ট্রাম্পকে উপহাস করেছেন সাবেক অনন্য সাধারণ বাগ্মী এবং দূরদর্শী সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামা।
মানসিক পীড়া, ঘৃণাবোধ এবং বিদ্বেষজাত ক্রোধই ম্যাস কিলিং প্রবৃদ্ধির জন্য দায়ি বলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জাতির উদ্দেশ্যে প্রদত্ত বক্তব্যে উল্লেখ করেছেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে প্রেসিডেন্ট ওবামা বলেন, আমাদের নেতাদের মুখ নিঃসৃত বক্তব্য ভীতি ও ঘৃণাবোধের খোরাক যোগায় এবং র‌্যাসিস্ট বা উগ্রবাদী ধ্যান-ধারণাকে স্বাভাবিকত্বের লেবাস পরিয়ে দেয়।
নিজস্ব টুইটার এবং ফেইসবুক অ্যাকাউন্টে এক বক্তব্যে ওবামা বলেন, দাসত্ব থেকে রওয়ানডান গণহত্যার মত ব্যাপক নিধনযজ্ঞের অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মানবিক বিপর্যয়ের মূলে ছিল ভাষার চয়ন। ওবামা বলেন, জনবিদ্বেষী ও উস্কানিমূলক বক্তব্যের স্থান আমাদের রাজনীতিতে এবং সর্বসাধারণের জীবনে নেই। ওবামা বলেন, জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোষ্ঠী এবং রাজনৈতিক দলমত নির্বিশেষে আমেরিকার সিংহভাগ জনগণই এখন শুভ কামনায় সোচ্চার।
কর্তৃপক্ষের ধারণা যে মেক্সিকান অভিবাসীদের প্রতি অপ্রতিরোধ্য ক্রোধ বশেই টেক্সাসের এল পাসো ম্যাস কিলিংয়ের নায়ক ব্যাপক হত্যাকান্ড সংঘটিত করেছিল। ওহাইও ডেটন ম্যাস কিলিংয়ের নায়ক একই ধরনের বিদ্বেষ বশে এই অমানবিক হত্যাযজ্ঞ সংঘটিত করেছিল। ২০১৭ সালে হোয়াইট হাউজ ত্যাগের পর সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামার ২ হাজার ৩ শব্দমালার রচনাটি আমেরিকার জনগণের মনে মারাত্মকভাবে রেখাপাত করেছে। ওবামা ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নাম উল্লেখ না করলেও ট্রাম্পের অভিবাসন বিরোধী দৃষ্টিভঙ্গির প্রতি কটাক্ষ সর্বসাধারণের অন্তরকে সজোরে নাড়া দিয়েছে।