ঠিকানার এ সপ্তাহের কবিতা

মাদকের ভয়াবহতা

শামসুল হুদা, ভাষাসৈনিক

মাদক সমস্যা মাদক দ্রব্যের অবাধ ব্যবহার ও পাচার
ধারণ করেছে জটিল বহুমাত্রিক ও আন্তর্জাতিক সমস্যার আগার।
মাদক দ্রব্যের চোরাচালান সমস্যা সারা বিশ্বকে করেছে গ্রাস
ফলত সমাজ দেশ ও জাতির মধ্যে হয়েছে অহেতুক ত্রাস।
স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে মাদকাসক্তির ব্যাপকতা
এনে দিয়েছে গোটা দেশ ও জাতির মধ্যে কঠিন অস্থিরতা।
মাদকসেবীদের মধ্যে করেছে বিস্তারলাভ অসামাজিক কর্মকান্ড
মাদকসেবীরা নির্দ্বিধায় ঘটিয়ে চলেছে ঘৃণ্য ধর্ষণ ও হত্যাকান্ড।
জাতির বড় সম্পদ তরুণ সমাজ যাদের নিকট ভবিষ্যত প্রত্যাশা
মাদকাসক্তির কারণে বিপথগামী হয়ে করছে ধুলিসাত সকল আশা
পুরুষের সাথে সমান অধিকারের বিশেষ দাবিদার নারীরা
নারীর ক্ষমতায়ণের ফলে মাদক গ্রহণে পিছিয়ে নেই তারা।
বাংলাদেশে বেকারত্বের করাল ছায়া প্রকটভাবে বিদ্যমান
বেকারত্বের কারণে তরুণদের মধ্যে তীব্র হতাশা বিরাজমান।
একদা বলা হত লেখাপড়া করে যে গাড়িঘোড়া চড়ে সে
বর্তমানে লেখাপড়া করে যে বেকারত্বে ভোগে সে।
বেকার তরুণদের অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ড দৃশ্যমান
গণমুখী ও কারিগরি শিক্ষা এনে দিতে পারে কাঙ্খিত সমাধান
মানবিক গুণাবলী ও নৈতিক শিক্ষার উৎকর্ষ সাধন
শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন ও প্রকৃত শিক্ষাদান
মাদকাসক্তির অবসানে রাখতে পারে অবদান
হতে পারে মাদকের ভয়াল বিস্তারের অবসান।
দেশে মাদকদ্রব্যের চোরাচালান প্রতিরোধে ব্যবস্থাগ্রহণ
আনতে পারে মাদক নির্মূলের স্থায়ী সমাধান।
প্রতিকারের স্থলে প্রতিরোধই উত্তম অবলম্বন
কালক্ষেপণ না করে করা হোক গ্রহণ।
সিয়েটেল।

দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধারাই সবার সেরা

দিল আফরোজা কাজী রহমান চাঁপা

বাংলাদেশটা ভরে আছে ছোট বড়
ধনী গরীব সুখী-দুঃখী জ্ঞানী-মূর্খ
মানুষ নানান জাতে।
দেশের মুক্তির জন্য প্রাণ দিল যারা
তাদের কথা মনে পড়লো আজ
ডিসেম্বরের এই রাতে।
নিজ স্বার্থ ত্যাগ করে দেশের স্বার্থে
নিজ প্রাণ উৎসর্গ করলো যারা
বাংলাদেশের বুকে নিঃস্বার্থ এই
সাহসী মানুষেরাই সবার সেরা।
তোমাদের সালাম ওহে মুক্তিযোদ্ধা
ওহে শহীদ ওহে নির্ভীক।
বাংলার বুকে তোমরাই হলে
সত্যিকারের দেশপ্রেমিক।
ষোলই ডিসেম্বরের এই বিজয় দিবসে
আজ আমরা করি তোমাদেরই জয়গান
এহান আল্লাহ যেন তোমাদের
বেহেশতের শ্রেষ্ঠতম স্থানে দেন স্থান।
ফ্লোরিডা।

আমাদের বিজয়

নূরুন্নেছা চৌধুরী রুনী

১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস
ত্যাগের মহিমায় বিষাদে হরষ
নেতা হলেন রাজা
আশা নিয়ে বসে সবাই
দুষ্ট পাবে সাজা।
কাড়বেনা কেউ মুখের গ্রাস
থাকবে সুখে বারমাস
গোলাভরা ধান হবে
গোয়ালভরা গরু।
দুধেভাতে চাষার ছেলে
যেমন সতেজ তরু।
বায়ান্ন গেল একাত্তর গেল
স্বপ্ন কি হায় পূর্ণ হলো?
সানকি ভর্তি অন্ন নেই
শূন্য গোয়াল গরু নেই
দুধ না পায় চাষার পুত
সব খায় যে মাসদো ভূত।
রক্তভেজা স্বাধীনতা
সন্তান শোকে বঙ্গমাতা
আহাজারি করেন শুধু
ব্যথার পাহাড় বুকে নিয়ে
সব হারানোর বেদনাতে
পাগলিনী হয়ে কাঁদে
দেশ কি আবার পড়লো ফাঁদে।
অমঙ্গল কি আসছে আবার
চোখে কেবল সর্ষে নাচে
বঙ্গমাতার শূন্য কোল
হিন্দি ভাষা হিন্দি গানে
হারিয়ে যাচ্ছে বাংলা বোল।
বন-বাদাড়ে ডাস্টবিনে
শিশু কাঁদে মা বিনে।
স্বাধীন দেশের দেশ-চালক
দুর্নীতির ধারক বাহক
এমন বেকুব মাতাল যারা
দেশের স্বার্থ বিলিয়ে দিয়ে
তোষামোদি করে তারা।
ভাইয়ে ভাইয়ের রক্ত চোষে
দম্ভ ভরে চেয়ারে বসে
গদির লোভে আত্মহারা
হায়ে বিজয় মাঠে মারা।
বাফেলো।