ঢাকার মঞ্চে উড়ন্ত চুমু দিয়ে ভালোবাসা ছড়ালেন নোরা ফাতেহি

ছবি সংগৃহীত

ঠিকানা অনলাইন : শুভসন্ধ্যা, আমি খুবই খুশি বাংলাদেশে এসে। আমি আনন্দিত এবং গর্বিত—এভাবেই বাংলাদেশে আসার অনুভূতি প্রকাশ করলেন বলিউড তারকা নোরা ফাতেহি।

উড়ন্ত চুমু ছুড়ে দিয়ে দর্শকদের প্রতি ভালোবাসা ছড়ান নোরা, হাত নেড়ে সবাইকে শুভেচ্ছা জানান। বক্তব্য দিতে গিয়ে আপ্লুত হয়ে বলেন, ‘ঢাকায় আসতে পেরে আমি সত্যি অনেক আনন্দিত। দ্বিতীয়বারের মতো আমার এখানে আসা। এত সুন্দর রাতের জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। বাংলাদেশের আতিথেয়তা আমাকে মুগ্ধ করেছে।’ আবার আসতে চান বলেও জানান এই অভিনেত্রী।

ছবি সংগৃহীত

শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টায় অনুষ্ঠান শুরুর কথা থাকলেও আনুষ্ঠানিকতা শুরু হতে বেজে যায় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা। ‘জয় বাংলা বাংলার জয়’ গানের সঙ্গে দলীয় নৃত্যের মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এরপর শুরু হয় অ্যাওয়ার্ড প্রদান। এরই ফাঁকে একটি বিশেষ ফ্যাশন শো নিয়ে মঞ্চে আসেন একঝাঁক মডেল। শো স্টপার হিসেবে ফ্যাশন শোর সমাপ্তি টানেন চিত্রনায়িকা পূজা চেরি ও সাবিলা নূর। এরপর বক্তব্য দেন সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ।

নানা জটিলতা পেরিয়ে অবশেষে ১৮ নভেম্বর শুক্রবার দুপুর দেড়টায় ঢাকায় পা রাখেন নোরা ফাতেহি। রংধনু গ্রুপ নিবেদিত উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের আমন্ত্রণে ‘গ্লোবাল অ্যাচিভার্স অ্যাওয়ার্ড ২০২২’-এ অংশ নিতে তার ঢাকায় আসা। এবারই প্রথম ঢাকায় এসেছেন তিনি।

দুপুরে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছালে নোরাকে স্বাগত জানায় উইমেন লিডারশিপ করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। এরপর উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে দুটি ছবি পোস্ট করে লেখা হয়, ‘আলহামদুলিল্লাহ! অবশেষে নোরা ফাতেহি ঢাকায় পৌঁছেছেন।’ ছবিতে গোলাপি ট্রাউজার ও হুডি, সঙ্গে কালো রোদচশমায় ফুরফুরে মেজাজে দেখা যায় নোরাকে।

বিমানবন্দর থেকে সোজা লা মেরিডিয়ান হোটেলে ওঠেন নোরা। সেখানে বিশ্রাম শেষে রাত নয়টার দিকে আসেন রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায়। অংশ নেন অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে।

সন্ধ্যা থেকেই দর্শকেরা অপেক্ষায় ছিলেন। রাত আটটায় মঞ্চে ওঠার কথা থাকলেও নোরা ফাতেহি মঞ্চে আসেন নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘণ্টা পর রাত সাড়ে নয়টায়। উপস্থিত দর্শক মুহুর্মুহু করতালির মাধ্যমে স্বাগত জানান তাকে। ঈগল ড্যান্স গ্রুপের পারফরম্যান্সের সঙ্গে মঞ্চে ওঠেন নোরা। বাংলাদেশে আসতে পারায় তিনি নিজের ভালো লাগার কথা জানান। নোরা ফাতেহি বলেন, ‘বাংলাদেশের আতিথেয়তা আমাকে মুগ্ধ করেছে।’

ছবি সংগৃহীত

তিনি আরও বলেন, ‘আমি নারীদের এগিয়ে যাওয়াকে গর্ব হিসেবে গ্রহণ করি। নারীদের নিয়ে আমার অনেক কথা বলতে ইচ্ছে করে। আজ শুধু এটুকুই বলতে চাই, নিজের স্বপ্ন পূরণ সাহস এবং শক্তি রেখে সামনে এগিয়ে যান।’

বাংলাদেশে আমন্ত্রণ পেয়ে ‘ধন্য’ বলে অনুভূতি প্রকাশ করেন নোরা। নোরার ভাষায়, ‘আমাকে আমন্ত্রণ করার জন্য ধন্যবাদ। এ রকম আয়োজনে আমি বারবার বাংলাদেশে আসতে চাই।’

নারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নিজের স্বপ্ন পূরণে সাহস ও শক্তি রেখে সামনে এগিয়ে যান।’ সব শেষে নোরা জানান, পরবর্তী কোনো আয়োজনে তিনি আবারও বাংলাদেশে আসতে চান। এরপর নোরা ফাতেহি বেশ কিছু পুরস্কার তুলে দেন বিজয়ীদের হাতে।

মঞ্চে আধা ঘণ্টা অবস্থান করলেও পারফর্ম করেননি নোরা। শনিবার বিকেলে কাতারের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ার কথা নোরা ফাতেহির। সেখানে অংশ নেবেন ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজনে।

ঠিকানা/এনআই