ঢাকা-নিউইয়র্ক ফ্লাইট সহসাই

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী

ঠিকানার সঙ্গে আলাপকালে বিমান প্রতিমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি : আগামী ৭-৮ মাসের মধ্যে জাতীয় পতাকাবাহী বাংলাদেশ বিমানের ঢাকা-নিউইয়র্ক-ঢাকা ফ্লাইট চালুর জোর প্রচেষ্টা চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিমানের বহরে যুক্ত হয়েছে দুটি সুপরিসর উড়োজাহাজ। ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে বিমান যাতে নিউইয়র্কে দ্রুত ল্যান্ডিং পারমিশন পায়, সে ব্যাপারে তার দেশের সরকারের সাথে কথা বলে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তা দেরি হলে ঢাকা-টরন্টো (কানাডা) রুটে বিমানের সার্ভিস চালু করার বিষয়টি সরকারের বিশেষ বিবেচনায় রয়েছে।
এমনই আশ্বাসবাণী শুনিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। সম্প্রতি তার কার্যালয়ে ঠিকানার সঙ্গে এক আলাপচারিতায় জাতীয় পতাকাবাহী বাংলাদেশ বিমানের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে মন্ত্রী খোলামেলা মন্তব্য করেন।
বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিমান লোকসান করার মতো প্রতিষ্ঠান নয়। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা দেশপ্রেমিক প্রবাসীদের কাছে যাতায়াতে প্রথম পছন্দের নাম বিমান। কিন্তু একটি সংঘবদ্ধ চক্র দীর্ঘদিন ধরে ঘাপটি মেরে থেকে বিমানকে ধ্বংস করে দিচ্ছিল, দেশের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে ব্যক্তি ও গোষ্ঠীস্বার্থে হয়রানি ও টিকিট বিক্রিতে অনীহার কারণে অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি অন্য এয়ারলাইনস ব্যবহার করতে বাধ্য হতো। এ চক্রটিকে চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে সম্প্রতি আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বা হচ্ছে। অনলাইন টিকিটিং সিস্টেম ও বিমানের আসন যাতে খালি না যায়, সে ব্যাপারে কঠোর নজরদারি করা হচ্ছে। টিকিটপ্রাপ্তি সহজ হওয়ায় ৩ মাসে বিমান এ খাতে ২৭৫ কোটি টাকা লাভ করেছে। কোনো ধরনের ফ্লাইট বাতিল না করে ৬৬ হাজারেরও বেশি হজযাত্রী পরিবহন করেছে বিমান। অন্যান্য বছরের মতো নানা আশঙ্কা থাকা সত্ত্বেও কোনো ধরনের ত্রু টি-বিচ্যুতি ছাড়াই নিরবচ্ছিন্ন হজ ফ্লাইট পরিচালনার মতো কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নজরদারির কারণেই। এছাড়া বিমানের আয় থেকে সম্প্রতি বিপিসির জ্বালানি মূল্যবাবদ বিপুল বকেয়া পরিশোধ করা হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া প্রতিষ্ঠান বিমান। সরকারের দেওয়া বিমানবাহিনীর একটি ডিসি-৩ এয়ারক্রাফটের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এর যাত্রা। ১৯৭২ সালের ৭ মার্চ চট্টগ্রাম ও সিলেটে এবং ৯ মার্চ যশোরে একটি ফ্লাইটের মাধ্যমে আকাশে ওড়ে বিমান। এভাবেই শুরু হয়েছিল বিমানের অভ্যন্তরীণ কার্যক্রম। অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের তিন দিন আগে অর্থাৎ ৪ মার্চ ১৭৯ জন যাত্রীকে লন্ডন থেকে ঢাকায় নিয়ে আসার মাধ্যমে বিমানের প্রথম আন্তর্জাতিক ফ্লাইট সম্পন্ন হয়।
চালুর পর থেকে কখনোই বিমান খুব একটা লাভের মুখ দেখতে পায়নি। বছরের পর বছর লোকসান, অনিয়ম, লুটপাটই যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছিল। দুঃখজনক হলেও সত্য, ২০১৪ সালে বিমানের দুর্নীতিবাজ চক্রটি ৫০ কোটি টাকা অগ্রিম দিয়ে মিসরের ইজিপ্ট এয়ারের কাছ থেকে দুটি বোয়িং ৭৭৭-২০০ ইআর উড়োজাহাজ ভাড়ায় আনে। দেশের স্বার্থ বিকিয়ে চক্রটি এমন চুক্তিতে বিমান দুটি আনে যে তা চালানো না হলেও মাসে ১০ কোটি টাকা ভাড়া দিতে হবে। এছাড়া বিমান দুটির সব ধরনের রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় বহনের পাশাপাশি পাঁচ বছর আগে তা ফিরিয়ে দেওয়া যাবে না। এর ফলে গত সাড়ে তিন বছরে বিমানকে ভাড়া বাবদ ৩০৫ কোটি টাকা গচ্ছা দিতে হয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বর্তমান চুক্তি বাতিল করে বিমান দুটি ফিরিয়ে দেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।
যাত্রী পরিবহনে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় বহরে দুটি সুপরিসর বিমান যোগ করা হয়েছে। এতে বিমানের রুট বাড়ার পাশাপাশি আয়ও বাড়বে বলে বিশ্বাস।
বিমানের বিরুদ্ধে সোনা চোরাচালানের অভিযোগ প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে প্রতিমন্ত্রী বেশ জোরের সাথেই বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে এই প্রবণতা অনেকটাই কমে গেছে। বেবিচকের পক্ষ থেকে চোরাচালান রোধে ব্যাপক নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এতে আগামী কিছুদিনের মধ্যেই সোনা থেকে শুরু করে সব ধরনের অবৈধ পণ্য চোরাচালান শতভাগ বন্ধ হয়ে যাবে।
বিমানে গতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে নতুন এমডি ও সিইও হিসেবে মোকাব্বির হোসেনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে বিমানের স্বার্থে সরকার যেখানে যে পরিবর্তন আনা প্রয়োজন মনে করবে, সেখানেই রদবদল করা হবে।
প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, বিমানকে নিয়ে আর কাউকে খেলতে দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জাতীয় পতাকাবাহী বিমানসহ জাতীয় ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রাখার ক্ষেত্রে আমাদের সব ধরনের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। এ জন্য তিনি দেশি-প্রবাসী সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।