দেশে ফিরছেন ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের রাষ্ট্রদূতরা

ঠিকানা রিপোর্ট : যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শহীদুল ইসলাম ও চীনে নিযুক্ত মাহবুবুজ্জামান চলতি আগস্ট মাসেই ঢাকায় ফিওে যাচ্ছেন। রাষ্ট্রদূত হিসেবে মাহবুবুজ্জামানের মেয়াদ গত ১৭ আগস্ট শেষ হয়েছে। তিনি ঢাকায় ফিরবেন ২৪ আগস্ট। অন্যদিকে শহীদুল ইসলামের মেয়াদ ডিসেম্বরে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও জটিলতার কারণে তাকে আগেই ফিওে যাবার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি আগামী ৩১ আগস্ট দেশে ফিরে যাচ্ছেন।
অন্যদিকে দিল্লিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মাদ ইমরানকে ওয়াশিংটনে এবং সুইজারল্যান্ডে রাষ্ট্রদূত মো. মুস্তাফিজুর রহমানকে দিল্লি পাঠানোর সিদ্ধান্ত আগেই নেয়া হয়েছে।
এ ছাড়া নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের উপ-স্থায়ী প্রতিনিধি মো. মনোয়ার হোসেনকে মিয়ানমারে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। ২০ ব্যাচের কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন এর আগে দক্ষিণ এশিয়া অণুবিভাগের মহাপরিচালক ছিলেন। চিকিৎসা শাস্ত্রে স্নাতক ডিগ্রিধারী মনোয়ার সিঙ্গাপুর থেকে জনস্বাস্থ্য বিষয়ে পিএইচডি করেছেন।
একটি সূত্র জানায়, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর দিল্লি সফরের পরে ওই মাসেই ওয়াশিংটনে আসবেন মোহাম্মাদ ইমরান। তিনি দিল্লি ত্যাগ করার পরে মুস্তাফিজুর রহমান জেনেভা থেকে ভারতে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।
সূত্রটি আরো জানিয়েছে, জেনেভাতে নতুন দায়িত্ব নেবেন অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত সুফিয়ুর রহমান এবং ডেনমার্কে রাষ্ট্রদূত আল্লামা সিদ্দিকী যাবেন অস্ট্রেলিয়ায়। ডেনমার্কে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসাবে যাচ্ছেন ভূটানে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত একেএম শহীদুল করিম এবং ভূটানে রাষ্ট্রদূত হিসাবে পাঠানো হচ্ছে সরকারি কর্মকর্তা শিবনাথকে।
একাধিক সূত্র জানায়, কাতারে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মো. জসিম উদ্দিনকে চীনে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসাবে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বিসিএস ১৩তম ব্যাচের কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন এর আগে গ্রিসে রাষ্ট্রদূত ছাড়াও ওয়াশিংটন, দিল্লি, ইসলামাবাদসহ অন্যান্য স্থানে দায়িত্ব পালন করেছেন। গ্রিসে রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালনের সময়ে জনবান্ধব কূটনীতির জন্য তিনি সরকারের কাছ থেকে জনপ্রশাসন পুরস্কার পেয়েছেন।
সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মো. তৌহিদুল ইসলামকে অস্ট্রিয়াতে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে বিসিএস ১৭তম ব্যাচের কর্মকর্তা তৌহিদকে ২০১৯ সালে নেদারল্যান্ডে রাষ্ট্রদূত করার জন্য দেশটির কাছে অনুমতি চাওয়া হলে দেশটি সাড়া দেয়নি। পরবর্তী সময়ে তাকে এশিয়ার একটি দেশে রাষ্ট্রদূত হিসেবে পাঠানো হয়। ২০১৪ সালে একজন নারী সহকর্মীর প্রতি অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগে তাকে মিলান থেকে ঢাকায় ফেরৎ আনা হয়েছিল।
মিয়ানমারে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মঞ্জুরুল করিম খান চৌধুরীকে সিঙ্গাপুরে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসাবে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। ১৭তম ব্যাচের কর্মকর্তা মঞ্জুরুল ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা ঢলের সময়ে মিয়ানমারে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবিলায় তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন এবং ২০১৮ সালে তাকে মিয়ানমারে রাষ্ট্রদূত হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়। তিনি ইউরোপ ও এশিয়ার বিভিন্ন দেশে কর্মরত ছিলেন।