ধীরে ধীরে মারা যাচ্ছে ‘ডাকা’

ঠিকানা রিপোর্ট : মার্কিন কংগ্রেসে বিল পাস না হওয়ায় ধীরে ধীরে মারা যাচ্ছে ডিফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভালস (ডাকা) কর্মসূচি।
২০১২ সালে ডাকা প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এটি আইনি লড়াই এবং রাজনৈতিক বিতর্কের বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। ওবামা প্রশাসন কার্যনির্বাহী পদক্ষেপের মাধ্যমে প্রথম এই কর্মসূচি চালু করে। এই কর্মসূচিটি কিছু তরুণ-তরুণীকে নির্বাসন থেকে সুরক্ষা প্রদান করে। তবে গত এক দশকে এটিকে স্থায়ী আইনে পরিণত করার জন্য কংগ্রেস কোনো বিল পাস করেনি।
এখন ডাকা সুবিধাভোগী (ড্রিমার), অ্যাডভোকেট এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞানীরা বলছেন, কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাটরা কর্মসূচিটি বাঁচাতে পদক্ষেপ না নিলে ধীরে ধীরে মারা যাবে।
ক্যালিফোর্নিয়া সান দিয়েগো বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক টম ওং বলেছেন, ‘ডাকা কর্মসূচি-২০১২ বর্তমানে একটি সূতায় ঝুলে আছে এবং লাইফ সাপোর্টে রয়েছে। আমরা এখন এমন একপর্যায়ে আছি যেখানে ডাকা সুবিধাভোগীদের স্থায়ী সুরক্ষা প্রদানের জন্য একটি আইনী সমাধান করা জরুরি দরকার। অন্যথায় গত এক দশকে তারা যা অর্জন করেছেন অনেকেই সম্ভবত তা হারাবেন।’
অক্টোবরের গোড়ার দিকে, পঞ্চম সার্কিট কোর্ট অফ আপিল একটি নিম্ন আদালতের পক্ষে ডাকা কর্মসূচির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে এবং নতুন আবেদনকারীদের জন্য এর সম্প্রসারণ বন্ধ করে দেয়। আপিল আদালত বলেছে, মোটামুটি ৬ লাখ বর্তমান ডাকা সুবিধাভোগী বা ‘ড্রিমার্স’ তাদের অবস্থান আপাতত রাখতে পারে, কিন্তু আর কোনো নতুন আবেদন প্রক্রিয়া করা যাবে না।
মূলত আটটি রাজ্যের সাথে টেক্সাস ২০১৮ সালে ডাকার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এসব রাজ্য যুক্তি দেখায় যে ওবামা প্রশাসনের ডাকা বাস্তবায়নের কর্তৃত্ব বা ক্ষমতা নেই। টেক্সাসের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্টের ডিস্ট্রিক্ট জজ অ্যান্ড্রু হ্যানেন ২০২১ সালের জুলাই মাসে ডাকা-কে বেআইনি ঘোষণা করেন এবং বাইডেন প্রশাসন পঞ্চম সার্কিটে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে।
এর আগে ২০২১ সালে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ‘ডাকা সংরক্ষণ এবং শক্তিশালী করার’ প্রয়াসে একটি মেমোরেন্ডাম জারি করেন। ডাকার এই নতুন বাইডেন সংস্করণ ফেডারেল প্রবিধানে কোডিফাই করে ৩১ অক্টোবর, ২০২২ থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। কিন্তু ৫ অক্টোবর পঞ্চম সার্কিট কোর্ট অফ আপিল ডিস্ট্রিক্ট জজ অ্যান্ড্রু হ্যানেনের পক্ষ নেয় এবং এর জন্য হ্যানেনকে নতুন বাইডেন ডাকা মেমোর বৈধতা পর্যালোচনা করতে হবে।
‘ইউনাইটেড উই ড্রিম’-এর নির্বাহী পরিচালক গ্রেসা মার্টিনেজ রোসাস বলেন, ‘আমাদের শেষ আশাটুকু ধরে রাখতে হবে এবং আশা করি যে বিচারক হ্যানেন একদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ডাকা শেষ করার সিদ্ধান্ত নেবেন না।’
আইনি অনিশ্চয়তা এবং ডেমোক্র্যাটরা মধ্যবর্তী মেয়াদে কংগ্রেসের অন্তত একটি চেম্বারের নিয়ন্ত্রণ হারাবেন এমন আশঙ্কার মধ্যেও কেউ কেউ ড্রিমারদের জন্য স্থায়ী সুরক্ষার একটি আইন পাস করার সুযোগ দেখতে পাচ্ছেন। অন্যরা বলছেন, তারা আশায় আঁকড়ে আছেন যে ডেমোক্র্যাটরা ল্যাম-ডাক (শেষ) অধিবেশন চলাকালে আইন প্রণয়ন করতে পারেন।
কংগ্রেসের বর্তমান নিয়ন্ত্রণ সত্ত্বেও ডেমোক্র্যাটরা সিনেটে সবচেয়ে কম সংখ্যাগরিষ্ঠ। আইন পাস করার জন্য একটি ফিলিবাস্টারকে অতিক্রম করতে ৬০ ভোটের প্রয়োজন হয়। এজন্য বোর্ডে কমপক্ষে ১০ জন রিপাবলিকানের সমর্থন পেতে হবে ডেমোক্র্যাটদের। ২০২১ সালে হাউসের একটি সফল প্রচেষ্টা সত্ত্বেও ডাকা বিল সিনেটে তোলা যায়নি। ইলিনয়ের ডেমোক্র্যাট সিনেটর ডিক ডারবিন ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ড্রিমারদের নাগরিকত্বের জন্য একটি স্থায়ী পদ্ধতি তৈরির লক্ষে একটি আইন পাসের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কিন্তু রিপাবলিকান এবং কিছু ডেমোক্র্যাট পাঁচবার এটিকে পাস হতে বাধা দিয়েছেন।
ডারবিন অভিবাসন সংস্কারের বিষয়ে গত বছর সিনেট রিপাবলিকানদের সাথে পুনরায় আলোচনা শুরু করেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত আলোচনায় কোনো আইন তৈরির মতো সফলতা আসেনি।
কিছু অ্যাডভোকেট এবং আইন প্রণেতা এখনো আশা করছেন, ডেমোক্র্যাটরা নভেম্বরে কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ হারালেও তারা ল্যাম-ডাক (শেষ) অধিবেশনে আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দেবেন। তারা এখনো এটি পাস করার চেষ্টা করার জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠ আছেন।
ক্যালিফোর্নিয়ার ডেমোক্র্যাট সিনেটের অ্যালেক্স প্যাডিলা বলেন, তিনি আশা করেন ল্যাম-ডাক অধিবেশনে ডাকা এবং অভিবাসন সংস্কার ব্যবস্থা অগ্রাধিকার পাবে।