ধূমপান রোধে যে খাবার খাবেন

‘ধূমপানে বিষপান’ কথাটি শৈশব থেকেই শুনে আসছি আমরা। কিন্তু ক’জনই বা এটা মেনে চলেন? তবুও অনেকেই আছেন ধূমপান রোধ করার লক্ষ্যে আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। কয়েকটি খাবার খেয়ে তারা সহজেই এ গতি ত্বরান্বিত করতে পারেন। চলুন জেনে নেই খাবারগুলো কি।
ফল এবং শাকসবজি
ফল ও সবজি থেকে যে পরিমাণ ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন সি ও ডি পাবার কথা সে সম্ভাবনা রোধ করে দেয় সিগারেট। উদাহরণস্বরূপ, একটি মাত্র সিগারেট সেবনের ফলে শরীর থেকে ২৫ গ্রাম ভিটামিন সি বেরিয়ে যায়। খাদ্যতালিকায় অধিক পরিমানে ফল এবং সবজি যোগ করলে শরীর থেকে হারিয়ে যাওয়া পুষ্টি ফেরত আসবে এবং সিগারেটের প্রতি টান কমিয়ে দেবে।
খেয়াল করে দেখবেন যে, সিগারেট সেবন বাদ দেবার সঙ্গে সঙ্গে খাবার অধিক সুস্বাদু লাগতে শুরু করবে আপনার। ফল, সবজি এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর খাবারের উপর রুচি বাড়বে।
দুধ এবং দুগ্ধজাত পণ্য
ধূমপায়ীরা তাদের অভিব্যক্তি পেশ করেছেন এই বলে যে, দুধ পান করলে সিগারেট একটি বিকৃত স্বাদ ধারণ করে। কেউ কেউ বলেছেন তাদের বেশ তিতা লাগে। সেজন্যেই যখনই আপনার সিগারেট সেবনের নেশা বোধ করবেন, তখনই দুধ পান করতে পারেন কিংবা দুধের তৈরি চকলেট, ক্যান্ডি কিংবা চা গ্রহণ করতে পারেন। এতে করে হয়তো আপনি সিগারেট থেকে দূরে থাকবেন।
জিনসেং চা
কয়েকটি গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে নিকোটিনের প্রতি নেশা কমানোর জন্যে জিনসেং বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি ভূমিকা পালন করে। কারণ, মস্তিষ্কে অবস্থানকারী ট্রান্সমিটার ‘ডোপামিন’ সিগারেট সেবনের আকাঙ্ক্ষা কমিয়ে দেয়। জিনসেং চা পান ধূমপান আসক্তি কমিয়ে দুর্বল করে দেয়।
চিনিমুক্ত চুইংগাম
চুইংগাম আপনার মুখকে ব্যস্ত রেখে ধুমপানের তীব্র আকাঙ্ক্ষাকে স্থিমিত করে দেয়। তাছাড়া সিগারেটের তুলনায় এটি অধিক সময়ে মুখে থাকে বলে সেটি সেবনের আকাঙ্ক্ষাও কমে যায়।
ধূমপান একেবারে ছেড়ে দেওয়ার জন্যে সচেষ্ট হতে হবে আপনাকেই। অ্যালকোহল, ক্যাফেইন, মাংস, মিষ্টি খাবার এবং অতিরিক্ত ঝাল খাবার খেলে ধূমপানের আগ্রহ বেড়ে যায় কয়েকগুণে