নগর ছেড়ে গ্রামের ভোটে কামরান

সিলেট : নগর ছেড়ে গ্রামে সক্রিয় সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। অসুস্থ শরীর নিয়েও ভোটের মাঠে তিনি নৌকার পক্ষে প্রচারণায় নেমেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর পক্ষে ভোটারের কাছে করছেন ভোট প্রার্থনা। গত দুই দিন সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের পাঁচটি ইউনিয়নে ভোটের মাঠ চষে বেড়িয়েছেন তিনি। দীর্ঘদিন পর ফেঞ্চুগঞ্জের গ্রামে ভোট উৎসব হচ্ছে। নানা জটিলতায় ওই পাঁচটি ইউনিয়নে ভোট হয়নি।

এবার আইনি জটিলতা কাটিয়ে ওঠার পর নির্বাচন কমিশন ভোট উৎসবের আয়োজন করেছে। ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে এ নির্বাচন। এ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন কামরান। গত গত ২২ মার্চই তিনি পাঁচ ইউনিয়নের অন্তত ১০ স্থানে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে সভা করেছেন। সভায় দেশের উন্নয়ন স্বাভাবিক রাখতে তিনি নৌকার পক্ষে ভোট চান। চলতি মাসে কামরানের হার্টে তিনটি রিং প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। এখনো পুরোপুরি সুস্থ নন তিনি।

এখন তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাও। এ কারণে নৌকার পক্ষে তাকে ভোট প্রার্থনা করতে ছুটে যেতে হচ্ছে গ্রামে গ্রামে। কামরান বলেন, আইনি জটিলতা থাকায় দীর্ঘ ১৫ বছর এই উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত ছিল। আইনি জটিলতা শেষ হওয়ায় আগামী ২৯ মার্চ উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে। তাই বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করে শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে তিনি গ্রামে ছুটে যাচ্ছেন।

কামরান গত ২৩ মার্চ ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার ১নং ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাশার আহমদ শাহ’র সমর্থনে, ২নং মাইজগাঁও ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জুবেদ আহমদ চৌধুরী শিপুর সমর্থনে ও ৩ নম্বর ঘিলাছড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাজি লেইছ চৌধুরীর সমর্থনে আয়োজিত পৃথক পৃথক আটটি নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

জনসভাগুলোতে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাশার আহমদ শাহ, জুবেদ আহমদ চৌধুরী শিপু ও হাজি লেইছ চৌধুরী নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করে বক্তব্য রাখেন।