নতুন পাবলিক চার্জ ইমিগ্র্যান্ট ও সদস্যদের উপর এর প্রভাব

মোহাম্মদ এন মজুমদার : ১৪ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট ইমিগ্রেশন ও ন্যাশনাল আইনের 212(a) (y) ধারায় পাবলিক চার্জ সম্পর্কিত নীতিমালা প্রণয়ন করেছেন যা আসছে ১৫ অক্টোবর থেকে কার্যকরী হবে। এতে নতুন গ্রিনকার্ড লাভ এবং ইমিগ্র্যান্ট হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিধি নিষেধের বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিয়েছেন।
১৮৪২ সাল থেকে কংগ্রেস পাবলিক সম্পর্কিত বিধিনিষেধের কথা বলে থাকলেও ১৯৯৯ সাল অবধি মূলত ৪টি বিষয়কে পাবলিক চার্জ বা জনগণের বোঝা হিসাবে গণ্য করা হতো:
551
TANF বা গরিবের জন্য প্রদেয় খোরাকী
ক্যাশ এসিস্ট্যান্স স্টেট ও লোকাল
মেডিকেইড
পূর্বে অনেকেই পাবলিক চার্জের আওতাধীন ছিলেন না আবার পাবলিক চার্জের রুলও কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করা হতো না।
নতুন রুলে যে সমস্ত বিষয়কে পাবলিক চার্জের আওতাভুক্ত করা হয়েছে :
৫৫১ সকল প্রকার ওয়েলফেয়ার
ফুড স্ট্যাম্প
সেকশান হাউজিং বেনিফিট
সকল প্রকার হাউজিং সিডি
তবে নতুন নীতিমালার
আওতায় নিম্নোক্ত বিয়ষগুলোকে
পাবলিক চার্জের আওতামুক্ত করা হয়েছে
ইমারজেন্সি মেডিকেল এসিস্ট্যান্স
ডিজাস্টার রিলিফ
স্কুল লস
ফোস্টারকেয়ার বেনিফিট
হেড স্ট্যাট
চাইল্ড হেলথ ইন্স্যুরেন্স
আর্ন ইনকাম ক্রেডিট
শিক্ষাখাতে প্রাপ্ত সুবিধা
আন এমপ্লয়মেন্ট বেনিফিট
তবে নন ইমারজেন্সি মেডিকেল বেনিফিট এবং অন্যান্য সরকারি সুবিধাসহ পাবলিক চার্জের আওতাভুক্ত তা গ্রহণকারীদের যারা বিগত ৩৫ মাসের মধ্যে ১২ মাস বা ততোধিক সময় গ্রহণ করেছেন তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রে ইমিগ্র্যান্ট হিসাবে প্রবেশ এবং এখানে গ্রিনকার্ড প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিধি নিষেধের আওতাধীন রাখা হয়েছে।
এছাড়াও একজন ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে পাবলিক চার্জের আওতাভুক্ত হবেন কিনা তা বিবেচনায় আনার পূর্বে আরও কিছু বিস্তারিত বিষয়াদি বিবেচনার আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে
যেমন : গ্রিনকার্ড প্রার্থীর বয়স, স্বাস্থ্য, ফ্যামিলির সাইজ বা পরিবারের সদস্যসংখ্যার পরিমাণ, স্কিন, শিক্ষাগত যোগ্যতা, ডিক্লারেশন অব সেল্ফ সাফিসিয়েন্স বন্ড ইত্যাদি একজন প্রার্থীর গ্রিনকার্ড প্রদান ও এডজাস্টমেন্টকালে বিবেচনায় আনা হবে। এছাড়া ১২৫% প্রোভার্টি গাইড লাইনের স্থলে ২৫০% এর উপরে প্রোভার্টি গাইড লাইন ধরা হচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, ২ জন এর পরিবার তৃতীয় ব্যক্তিকে স্পন্সর করার জন্য তার প্রয়োজন হবে, ন্যূনতম ৪১,১৫০ ডলার।
তবে যে সমস্ত ক্ষেত্রে আবেদনকারী যোগ্য বিবেচিত হবেন না সেই সকল ক্ষেত্র বিশেষে ৮,১০০ ডলারের বন্ড সাপেক্ষে গ্রীনকার্ড ইস্যু হতে পারে। এই বন্ড ইমিগ্র্যান্ট এর আমৃত্যু, মেয়াদ অথবা সিটিজেন হওয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।
টঝ স্পন্সরের দায়সমূহ
যুক্তরাষ্ট্রে ফেডারেল আইন অনুসারে একজন আসামি যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিনকার্ড নিয়ে আসার জন্য অথবা যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্রীনকার্ড নিয়ে আসার জন্য অথবা যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্রীনকার্ড লাভের পূর্ব শর্ত হিসাবে অভভরফধারঃ অব সাপোর্ট নামক ফরমটি ফাইল করতে হয় আবেদনকারীর পক্ষে একজন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক বা গ্রিনকার্ড ধারীকে। বর্তমানে ১২৫% পোভার্টি গাইড লাইনের আওতা ২০১৮ সালের শর্ত অনুসারে ৪ জনের একটি পরিবারের জন্য আয়ের প্রয়োজন হয় $৩২১৮ এবং প্রত্যেক অতিরিক্ত ব্যক্তির জন্য আয়ের প্রয়োজন হয় $৫,৫২৫ অতিরিক্ত। স্পন্সরের দায়িত্ব ও দায় বলবৎ থাকবে নবাগত ব্যক্তি যতদিন সিটিজেন অথবা যতদিন ৪০ ক্রেডিট কাজ দ্বারা অর্জন না করেন। অথবা যতদিন মৃত্যু না হয়, অথবা ১০ বছর পর্যন্ত কাজ করে। নবাগত ব্যক্তি বা গ্রিনকার্ড প্রাপ্ত ব্যক্তি এই সময়ের মধ্যে সরকারি সুযোগ সুবিধাসমূহ গ্রহণ করে থাকেন তাহলে সেই পরিমাণ আদায়ের জন্য এবং BREACH OF Contract বা চুক্তি ভঙ্গের অপরাধে সরকার স্পন্সরকারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারবেন।
সাধারণত ব্যাংক্রাপসি ফাইলিং এর ম্যাধমে অনেক দেনার দায় এড়ানো যায় তবে ডোমেস্টিক সাপোর্ট ও সরকারি সুবিধা পাওয়ার সাথে সাথে ১-৮৬৪ বা এফিডেভিট অব সাপোর্টের অবলিগেশান ব্যাংক্রাপসি ফাইলিং এর মাধ্যমে এড়ানো যায় না।
যারা বিবাহের মাধ্যমে স্পন্সর হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আসবেন তাদের ডিভোর্স হলেও স্পন্সর বা সিটিজেন ঐঁংনধহফ ও ডরভব থেকে ভরণপোষণ দাবি করতে পারবেন কারণ একজন সিটিজেন স্বামী ও স্ত্রী তার অষরবহ স্বামী বা স্ত্রীকে Affidavit অব সাপোর্ট এ এই মর্মে অঙ্গিকার করে এদেশে স্ট্যাটাস এডজাস্টমেন্ট এ সহায়তা দেন যে, অভিবাসী স্বামী-স্ত্রীর ভারণপোষণ ও অন্যান্য দায়িত্ব নিবেন। ফলে Sponsor obligation যতদিন বলবৎ থাকবে ততদিনই ভরণপোষণ দিতে হবে তালাক বা Separation এর দায়িত্ব অব্যাহতি দিবে না।
বিষয় যা প্রত্যেকেরই জানা উচিত
যারা গ্রিনকার্ড পেয়েছেন এবং এর পর সকল সরকারি সুযোগ সুবিধা নিজে বা নিজের সন্তানাদি গ্রহণ করছেন, তারা শুধুমাত্র সরকারি পাবলিক চার্জের আওতাধীন সুবিধাসমূহ গ্রহণের জন্য তাদের গ্রিনকার্ড হারাবেন না।
(২) তবে গ্রিনকার্ডধারীরা যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে যাওয়ার আগে বিশেষ করে যারা ৬ মাসের বেশি সময় যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে থাকবেন তারা ইমিগ্রেশন ল য়ারের পরামর্শ নিয়ে দেশের বাইরে ভ্রমণে যাবেন।
(৩) যারা যুক্তরাষ্ট্রের সিটিজেন সরকারি সকল সুবিধা বিনামূল্যে পাচ্ছেন তাদেরকে কোন প্রকার শংকা মোকাবিলা করতে হবে না।
(৪) তবে, যারা গ্রিনকার্ড পেয়েছেন বা পাবেন তারা সরকারি পাবলিক চার্জ গ্রহণের বা সরকারি সুযোগ সুবিধা গ্রহণের কারণে ডিপোর্টেশনের সম্মুখীন হবেন কিনা তা পরিষ্কার না হলেও এক্সপার্টদের অভিমত একজন লোককে শুধুমাত্র পাবলিক চার্জ বা সরকারি সুবিধা গ্রহণের জন্যই বহিষ্কার করা অনেকটা দুঃসাধ্য বলে মনে করেন।
(৫) নতুন আইনের আওতায় যারা দুর্বল, পঙ্গু, কর্মে অক্ষম ব্যক্তিগণ গ্রিনকার্ড প্রাপ্তিতে প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে পারেন অক্ষমতার কারণে।
(৬) যাদের গ্রীনকার্ড আছে তারা গ্রীনকার্ড রিনিউ করার সময় নতুন আইনের আওতায় পাবলিক চার্জ বা সরকারি সুবিধা গ্রহণের অজুহাতে গ্রিনকার্ড রিনিউ করতে কোনো ’প্রকার বাধার সম্মুখীন হবেন না।
(৭) যাদের সিটিজেনশিপ আছে এবং সিটিজেন হওয়ার আগে সরকারি বেনিফিটসমূহ পেয়েছেন তাদের সিটিজেনশিপ বাতিল হবে না।
(৮) যারা ইতিপূর্বে পাবলিক বেনিফিট নিয়েছেন, বর্তমানে গ্রিনকার্ড Application করার সময় আপনি যদি প্রমাণ করতে সক্ষম হন যে ভবিষ্যতে আর আপনি পাবলিক চার্জ বা জনগণের দায় হবেন না, তাহলে ইতিপূর্বেকার গৃহীত সুবিধাভোগের জন্য আপনার গ্রিনকার্ড পেতে অসুবিধা হবে না।
(৯) এসাইলি, রিফুজি, U এবং T Visa VAWA অথবা SPecial Immigrant Juvenile রা পাবলিক চার্জ এর আওতায় আসবেন না।
(১০) ২০১৯ সালে ১৫ অক্টোবর থেকে নতুন নীতিমালার অধীনে গ্রিনকার্ড বা ভিসা অনুমোদন শুরু হবে বিধায় ইতিপূর্বে দাখিলকত দরখাস্তসমূহহ পূর্বেকার আইনের আওতায়ই প্রসেসিং করা হবে।
৫টি বিশেষ বিষয় লক্ষ্যণীয়
সাধারণত যারা গ্রিনকার্ডধারী তারা নতুন আইনের আওতাভুক্ত নয়।
গ্রিনকার্ডধারীদের শুধুমাত্র পাবলিক চার্জের কারণে ডিপোর্ট করা হবে না।
গ্রিনকার্ড রিনিউ করার ক্ষেত্রে নতুন রুল প্রযোজ্য নয়।
যারা ১৪০ দিনের বেশি যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে থাকতে চান তারা যুক্তরাষ্ট্রে ফেরত আসার সময় পাবলিক চার্জের দায়ে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারেন।
সাধারণত সিটিজেনশিপ প্রক্রিয়ায় পাবলিক চার্জ বিবেচ্য বিষয় নয়। তবে ইতিপূর্বে পাবলিক বেনিফিটের জন্য যোগ্য না হওয়া সত্বেও আপনি কোনো মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে পাবলিক বেনিফিট নিয়েছেন কিনা তা খতিয়ে দেখা যেতে পারে।
পাবলিক চার্জ সম্পর্কিত আরও তথ্যের জন্য কল দিন ৯১৭-৫৯৭-৬৩৪৫
১-৮০০-৩৫৪-০৩৬৫
সূত্র : এটর্নী খায়রুল বাসার