নতুন বন্ধনে পৃথিবীর প্রত্যাবর্তন

সৈয়দ মামুনুর রশীদ
সবুজ পাতায় ভরা শাখাগুলো দুলে ওঠে
অদৃশ্য বাতাস যখন বৃক্ষের সংস্পর্শে আসে,
আমিও দেখি না দখিনা বাতাস
উত্তরে এসে আমার গায়ে দোলা লাগলে।

অদৃশ্যের ছোঁয়া লাগলে এমনই হয়
বিস্ময়ে শিহরিত হই বিম্রতার অনুরাগ পেলে।
আবার আঁতকেও উঠি, থমকে যাই
জীবন হরণে কোন অণুজীব
আমার সঙ্গে ঘুরে বেড়ায় অথচ দেখি না!

হাত আমার শত্রু হয়ে যায় আমার অজান্তে!
প্রাত্যহিক স্পর্শতায় সন্দেহ,
এমনকি প্রিয়জনের অবারিত হাত বাড়িয়ে দিলে
সেখানেও অনিশ্চিত জীবন,
শঙ্কা ও ভয় সম্পর্ককে আহত করে।

স্বাভাবিক নতুনত্বের নতুন পৃথিবী,
নতুন জীবনধারা,
নতুন করে বাঁচার আকুতি,
ছয় ফুট দূরত্বের বোঝাপড়া,
অবাধ আলিঙ্গন, করমর্দন, শিষ্টাচার বিধিনিষেধে
আরো অনেক কিছু হতে পারে,
যদি ওয়ানওয়ে ফুটপাত দিয়ে হাঁটতে হয়, হাঁটব।
নতুন করে উঠে দাঁড়াবার জন্য,
তিক্ত অভিজ্ঞতায় পাওয়ার জন্য,
অভিনব সব অবলম্বিত অভ্যাসের মাঝে
তোমার আমার পৃথিবী নতুন ছন্দে মুখরিত হোক!
-নিউইয়র্ক।