নারীরা গাড়ি চালানোর সুযোগ পাওয়ায় সৌদিতে গাড়ি বিক্রি বাড়বে ৮%

বিশ্বচরাচর ডেস্ক : বৈশ্বিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান আরাঙ্কা প্রকাশিত গবেষণা অনুযায়ী, সৌদি আরবে নারীর গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় এবং তেলের মূল্যবৃদ্ধি ও ভোক্তা ব্যয় বাড়ানোর লক্ষ্যে অর্থনৈতিক নীতি প্রণয়নের ফলে দেশটিতে যাত্রীবাহী যানবাহনের বিক্রি ২০২২ সাল নাগাদ ৮ শতাংশ বাড়বে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সাল নাগাদ মোট নারী জনসংখ্যার ২০ শতাংশ অর্থাৎ ৩০ লাখ নারীকে চালক হিসেবে সৌদির রাস্তায় দেখা যাবে। যার ফলে সামনের বছরগুলোয় রাজ্যের গাড়ি শিল্প দ্রুত পরিবর্তিত হতে চলেছে।
প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, নতুন গাড়ি বিক্রি হওয়ার পাশাপাশি আগামী এক থেকে তিন বছরে রাজ্যের গাড়ি বেচাকেনার বাজারে নতুন ক্রেতারা ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।
আরাঙ্কার হিসাবমতে, ৪ লাখ ৩৮ হাজার নতুন যাত্রীবাহী গাড়ি ও ১ লাখ ১০ হাজার নতুন বাণিজ্যিক গাড়ি বিক্রিসহ ২০১৭ সালে সৌদি আরবে সচল গাড়ির সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ৭৩ লাখ।
সৌদির খুচরা যন্ত্রাংশের বাজারে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে গাড়ির চাকা। ২০১৭ সালে খুচরা যন্ত্রাংশের বাজারের ৩০ শতাংশ আয় হয়েছে গাড়ির চাকা বিক্রি থেকে, যার অর্থমূল্য দাঁড়ায় ২২০ কোটি ডলার।
অটোমেকানিকা জেদ্দা ২০১৯ সামনে রেখে আরাঙ্কার শ্বেতপত্রটি প্রকাশিত হলো। রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের গাড়ি ও সেবা শিল্পের জন্যই এ বাণিজ্য প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। তিন দিনের এ প্রদর্শনীটির তৃতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে জেদ্দা সেন্টারে আগামী ২৬ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি।
আরাঙ্কা বলছে, ২০২২ সাল নাগাদ সৌদি আরবের রাস্তায় ৬৫ লাখ যাত্রীবাহী গাড়ি ও ৩৫ লাখ বাণিজ্যিক গাড়ি মিলিয়ে এক কোটি গাড়ি চলাচল করবে।