নিউইয়র্ক টাইমসকে রাষ্ট্রদূত জিয়া উদ্দিনের ব্যাখ্যা দিয়ে চিঠি


ঠিকানা রিপোর্ট: গত ১৬ জানুয়ারি নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের প্রহসনের নির্বাচন’- শীর্ষক সম্পাদকীয়র বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। গত ১৮ জানুয়ারি তিনি পত্রিকাটির সম্পাদকের কাছে লেখা এক চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন যে, ‘বাংলাদেশের প্রহসনের নির্বাচন’- শীর্ষক সম্পাদকীয়তে যথার্থই চিহ্নিত করা হয়েছে যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন নির্বাচিত হয়েছেন। একটি বিকাশমান অর্থনীতি, নাটকীয়ভাবে দারিদ্র্য হ্রাস এবং মানবসম্পদ উন্নয়নের সূচক বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করেছে। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন, ‘কিন্তু এটা ভুল যখন সম্পাদকীয়তে এই সুপারিশ রাখা হয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তাকে ভোট দেয়ার জন্য ভয়-ভীতি দেখিয়েছে।
রাষ্ট্রদূতের কথায়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো নির্বাচন-পূর্ব সহিংসতা দমন করেছে। কিন্তু তার উদ্দেশ্য রাজনৈতিক ছিল না, বরং ছিল সুষ্ঠু এবং একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন নিশ্চিত করা। আর যা কি না অধিকাংশ নির্বাচন পর্যবেক্ষক বলেছেন।
মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন আরও উল্লেখ করেছেন যে, বাংলাদেশে কোনো ব্যাপক গ্রেপ্তারের ঘটনা ঘটেনি। উপরন্তু অতীতের নির্বাচনগুলোর তুলনায় ২০১৮ সালের নির্বাচন ছিল নিরাপদ এবং শান্তিপূর্ণ। জনগণ তাদের সরকার বেছে নিতে নিরাপত্তা এবং অর্থনৈতিক অগ্রগতির বিষয়টি দেখে থাকেন।
আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উভয়টিই নিশ্চিত করেছেন। আর সে কারণেই তার দল নিরঙ্কুশ জয়লাভ করেছে।