নিহত ক্যাপ্টেন আবিদের স্ত্রীও চলে গেলেন

নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহত প্রধান বৈমানিক ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতানের স্ত্রী আফসানা খানম আজ শুক্রবার সকালে মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড হসপিটালের যুগ্ম পরিচালক প্রফেসর ড. মো. বদরুল আলম মণ্ডল বলেন, ‘আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় আফসানা খানমকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে।’

আফসানা খানমের অবস্থা সংকটাপন্ন এবং চিকিৎসার প্রয়োজনে তাঁর মাথার খুলি আলাদা করে রাখা হয়েছে—গত মঙ্গলবারই এমন তথ্য দিয়েছিল ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স অ্যান্ড হসপিটাল কর্তৃপক্ষ। তখন থেকে তিনি লাইফ সাপোর্টে প্রি-কোমায় ছিলেন। চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে সকালে তিনি না-ফেরার দেশে চলে গেলেন।

গত ১২ মার্চ কাঠমান্ডুতে ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলার বিমান। এ সময় ক্রু, যাত্রীসহ মোট ৭১ আরোহী ছিলেন বিমানে। তাঁদের মধ্যে ২৬ বাংলাদেশিসহ ৫১ জন নিহত হন।

ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার অবস্থা সংকটাপন্ন। পরদিন জানানো হয়, তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এর পর ১৯ মার্চ ২৩ জনের মৃতদেহের সঙ্গে আবিদের লাশও দেশে ফেরে।

মা আফসানা খানমকে হাসপাতালে রেখেই আর্মি স্টেডিয়াম থেকে বাবার লাশ আনতে গিয়েছিল এই দম্পতির একমাত্র ছেলে তানজিদ সুলতান মাহি।

চিকিৎসকরা জানান, দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পর পরই স্ট্রোক করেন আফসানা। পরে গত ১৮ মার্চ ফের স্ট্রোক করলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তখন থেকে বেশ কয়েকবার অস্ত্রোপচার করা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি ঠেকানো যায়নি।