নেদারল্যান্ডসকে রুখে দিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের সম্ভাবনা উজ্জ্বল করল ইকুয়েডর

ছবি সংগৃহীত

ঠিকানা অনলাইন : শক্তিশালী নেদারল্যান্ডসকে ১-১ গোলের ব্যবধানে রুখে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল করল লাতিন আমেরিকার দেশ ইকুয়েডর। আর তাতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই বিদায় নিল স্বাগতিক কাতার। নেদারল্যান্ডসের হয়ে গাকপো এবং ইকুয়েডরের হয়ে গোল করেন এনার ভ্যালেন্সিয়া।

ম্যাচের শুরুতেই আক্রমণ করে গোল তুলে নেয় নেদারল্যান্ডস। গাকপোর ডি বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া বাঁ পায়ের শট খুঁজে পায় গোলের ঠিকানা। মাত্র ৬ মিনিটে ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে যায় নেদারল্যান্ডস। এবারের টুর্নামেন্টে এটিই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুত গতির গোল।

টানা ১৪ ম্যাচ অপরাজিত থাকা ডাচরা মাঝমাঠের দখল নিয়ে পরিকল্পিতভাবে ইকুয়েডরের রক্ষণভাগে আঘাত হানার চেষ্টা করে। কিন্তু বারবারই ইকুয়েডরের রক্ষণভাগে বল বাধা পেয়ে ফিরে আসে। ম্যাচের ৩২ মিনিটে আগের ম্যাচের জোড়া গোল করা ভ্যালেন্সিয়ার শট দুর্দান্তভাবে রুখে দেন ডাচ গোলরক্ষক নোপার্ট। প্রথমার্ধ শেষের ১ মিনিট আগে ইকুয়েডরের এস্তোপিনান গোল করলেও সেটি অফসাইডের কারণে বাতিল হলে ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে বিরতিতে যায় নেদারল্যান্ডস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ডাচদের চেপে ধরে ইকুয়েডর। ৪৯ মিনিটেই কাঙ্ক্ষিত গোল আদায় করে নেয় ইকুয়েডর। আবারও দলের হয়ে গোল করেন ভ্যালেন্সিয়া। ডান পাশ থেকে এস্তোপিনানের বুলেট গতির শট ডাচ গোলরক্ষক রুখে দিলেও রিবাউন্ডে গোল করে দলকে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফেরান এনার ভ্যালেন্সিয়া। এ নিয়ে কাতার বিশ্বকাপে তার গোলসংখ্যা দাঁড়াল ৩।

গোল দিয়ে যেন আরও উজ্জীবিত হয়ে খেলতে থাকে ইকুয়েডর। ৫৯ মিনিটে ভাগ্যদেবতা যেন মুখ ফিরিয়ে নেয় ইকুয়েডরের থেকে। প্রিসাইডোর দূরপাল্লার শট গোলবারে লেগে ফিরে এলে নিশ্চিত গোলবঞ্চিত হয় লাতিন দলটি। বিশ্বকাপে ইউরোপিয়ানদের বিপক্ষে সাতবারের মোকাবিলায় মাত্র দুবার জয়ের দেখা পাওয়া ইকুয়েডর ৬৪ মিনিটে আবারও গোলের সুযোগ তৈরি করে। ডান পাশ থেকে ভ্যালেন্সিয়ার বাড়ানো ক্রসে প্লাটা ঠিক সেভাবে গোলমুখে শট নিতে পারেননি।

ম্যাচ শেষ হওয়ার কিছু সময় ইকুয়েডরের জন্য দুঃসংবাদ হয়ে আসে ভ্যালেন্সিয়ার ইনজুরি। স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়তে হয় এই ইকুয়েডেরিয়ানকে। শেষ দিকে ডাচরা গোলের চেষ্টা করলেও ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো তাদের।

ঠিকানা/এনআই