পারলেন না শ্রাবন্তী

আবার যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেলেন ঢাকার শোবিজের এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী। দুই মেয়ে রাবিয়াহ ও আরিশাকে নিয়ে অবশেষে নিউইয়র্কেই ফিরে গেলেন তিনি। তার দেশ ছাড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শ্রাবন্তীর ঘনিষ্ঠ নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী।
চয়নিকা চৌধুরী বলেন, ‘শ্রাবন্তী ভেবেছিল আলম ভাইয়ের সঙ্গে তার দাম্পত্য ঝামেলা মিটমাট হয়ে যাবে। শ্রাবন্তীকে তিনি যে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন সেটা সন্তানদের কথা ভেবে তুলে নেবেন। কিন্তু আলম ভাই সেটা করেননি। সব রকমের চেষ্টা করে শ্রাবন্তী ব্যর্থ হয়েছে। ডিভোর্সের সিদ্ধান্তে অনড় থেকেছেন আলম ভাই। তাই শ্রাবন্তী সন্তান নিয়ে নিউইয়র্কে ফিরে গেল।’
ডিভোর্স নিয়ে আদালতে শ্রাবন্তী ও তার স্বামী মোহাম্মদ খোরশেদ আললের যে মামলা চলছে, সেটার কী হবে- এমন প্রশ্নে নির্মাতা চয়নিকা বলেন, ‘শ্রাবন্তী আমাকে বলেছেন, মামলাটি দেখবে তার পরিবারের সদস্য কালাম। তাকে মামলার ‘পাওয়ার অব অ্যাটর্নি’ দেওয়া হয়েছে।’
তাহলে কী শ্রাবন্তীর ডিভোর্স নিশ্চিত? জানতে চাইলে চয়নিকা চৌধুরী ভাষ্য, ফিরে যাওয়ার আগে শ্রাবন্তী আমাকে বলেছেন, ‘আমি তো আলমের সঙ্গে সংসার করার অনেক ট্রাই করলাম। এখন সে যদি আমার সঙ্গে থাকতে না চায়; তাহলে তো আর জোর করতে পারি না। এখন তো আমাকে আমার মেয়েদের দিকটাও ভাবতে হবে। তাদের স্বপ্ন পূরণে আমাকে নিউইয়র্কে যেয়ে কিছু একটা করতে হবে।’
চলতি বছরের মে মাসে অভিনেত্রী ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তীকে ডিভোর্স লেটার পাঠান তার স্বামী খোরশেদ আলম। এরপর ২২ জুলাই এই ডিভোর্স লেটারকে অবৈধ দাবি করে ঢাকার পারিবারিক আদালতে ‘দাম্পত্য স্বত্ব পুনরুত্থান’ মামলা করেন শ্রাবন্তী। আগস্টের শুরুতেই তাদের দুই পক্ষকে ডাকেন আদালত। যেখানে দুই সন্তান নিয়ে হাজির ছিলেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। তবে ডিভোর্সের সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন স্বামী খোরশেদ আলম। তাই দুঃখ নিয়েই দেশ ছাড়তে হলো এ অভিনেত্রীকে।