পারিবারিক সহিংসতার শিকারদের রক্ষায় বিশেষ নিরাপত্তা আইন

ঠিকানা রিপোর্ট: অত্যাধুনিকতার অভিশাপপুষ্ট সমাজ ব্যবস্থায় মানুষের মনুষ্যত্ববোধ নির্বাসনে যাচ্ছে এবং সামান্য কারণে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন ও পারিবারিক সহিংসতা সর্বকালের মাত্রা ছেড়ে গেছে। এমনতর বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো পারিবারিক সহিংসতার রক্ষাকল্পে একটি বিশেষ আইনে স্বাক্ষর করেছেন বলে ১০ আগস্ট জানা গেছে।
নতুন আইনে অর্থনৈতিক অপব্যবহারকে পারিবারিক সহিংসতা অপরাধের উপকরণে পরিণত করবে, পারিবারিক সহিংসতায় বেঁচে থাকাদের ডাক যোগে ভোট প্রদানের অধিকার দেয়া হবে এবং অপরাধ সংঘটনের স্থানের কথা বিবেচনায় না নিয়ে ভিকটিমরা যে কোন পুলিশ এজেন্সীতে নিগ্রহের অভিযোগ দাখিল করতে পারবেন। ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স ক্রাইমের আওতায় আইডেন্টি চুরি, বড় ধরনের চুরি-চামারি এবং অবদমনকে অপরাধমূলক কাজ হিসেবে গণ্য করা হবে। ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স হিসেবে কাউকে আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর ক্ষেত্রে নিগ্রহের শিকার বা তার সন্তানের দৈহিক বা আবেগিক আঘাত কিংবা শারীরিক বা আবেগিক আঘাতের পর্যাপ্ত ঝুঁকিকেও বিবেচনায় আনা হবে। বিলটির কো-স্পন্সর ব্রুকলীনের ডেমক্র্যাটিক দলীয় অ্যাসেম্বলীম্যান হেলেন উইনস্টীন বলেন, অপব্যবহারকারীরা ভিকটিমদের সাঁশানোর জন্য অর্থনৈতিক দমন ব্যবহার করে থাকে।
ডোমেস্টিক আইনের নতুন ধারা অনুসারে, ভিকটিমরা সশরীরে কিংবা ডাকযোগে অ্যাবসেন্টী ব্যালটের জন্য আবেদন করতে পারবেন। নির্বাচনের তারিখে ভোটাররা নিজেদের কমিউনিটি থেকে অবস্থান করলে উক্ত পদ্ধতিটির ঐতিহ্যগতভাবে তারা পেয়ে থাকেন। আবেদনপত্রে ভিকটিমকে অবশ্যই প্রদর্শন করতে হবে যে পুরুষ/ নারী নির্বিশেষে তিনি পারিবারিক সহিংসতার শিকার। পারিবারিক সহিংসতার শিকার হয়ে তিনি রেসিডেন্স বা আবাসন ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। সর্বোপরি ভিকটিমের নিজের কিংবা পরিবারের সদস্যদের দৈহিক বা আবেগিক ক্ষতির পর্যাপ্ত ঝুঁকি রয়েছে।
বিলটির অপর কোস্পন্সার স্ট্যাটেন আইল্যান্ডের ডেমক্র্যাটিক দলীয় সিনেটর ডায়ানে সাভিনো বলেন, আইনটির ফলে ভিকটিমরা অপব্যবহার কারীদের সাথে মুখোমুখি বিরোধ ও সংঘর্ষ এড়াতে পারবেন। বিলটির অপর কোস্পন্সার স্কারসডালের ডেমক্র্যাটিক দলীয় অ্যাসেম্বলীম্যান এমী পাউলিন বলেন, আক্রমণকারী এবং ভিকটিম একই কাউন্টিতে বসবাস করার দরুন অনেক সময় নতুন হামলার শিকার হওয়ার ভয়ে ভিকটিমরা ভোটকেন্দ্রে হাজির হয়ে ভোট দিতে সাহস পাননা। এভাবে কারও কন্ঠরোধ করা কিংবা ভোটাধিকার প্রয়োগে বাধা দেয়া কোনক্রমেই উচিত নয়। তাই নতুন আইনে ভোটদানের নতুন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। ভিকটিমরা নিজেদের কমিউনিটি থেকে পালিয়ে গিয়ে নিজেদের বাড়ির দূরবর্তী পুলিশ প্রেসিক্টে অ্যাবিউজের ঘটনা জানালে পুলিশ কর্মকর্তাগণ সাফ জবাব দেন ঘটনাস্থল তাদের জুরিসডিকশনের বাইরে। আইনসভার কন্ঠভোটে পাশ হওয়া অপর একটি আইনে যে কোন পুলিশ এজেন্সীকে বাধ্যতামূলকভাবে নির্যাতনের মামলা গ্রহণ করতে হবে, পারিবারিক সহিংসতার বিশদ প্রতিবেদন তৈরি করতে হবে এবং বিনা পয়সায় প্রতিবেদনের একটি কপি ভিকটিমকে সরবরাহ করতে হবে। তারপর পুলিশ রিপোর্টের একটি কপি এবং ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স প্রতিবেদনের একটি কপি ভিকটিমের কমিউনিটির পুলিশ এজেন্সীকে প্রেরণ করতে হবে তদন্ত পরিচালনা এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য। এক্ষেত্রে পারিবারিক সহিংসতার শিকারদের অবশ্যই প্রদর্শন করতে হবে যে পুলিশ রিপোর্ট দাখিলের জন্য নিজেদের হোম কমিউনিটিতে ফিরে যাওয়া তাদের জন্য কষ্টকর কিংবা বিপজ্জনক হবে।
বিলটির অপর কোস্পন্সার ক্লার্কসটাউনের ডেমক্র্যাটিক দলীয় অ্যাসেম্বলীম্যান কেন জেবরোস্কি বলেন, নির্যাতনকারীদের পক্ষ থেকে যাবতীয় ভয়-ভীতি ও হুমকি ধমকির উর্ধে উঠে অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর সক্ষমতা নির্যাতিতদের প্রদান করাই আমাদের মুখ্য উদ্দেশ্য। জেবরোস্কি বলেন, আমি আশাবাদি যে উক্ত আইনের ফলে নির্যাতিতরা নির্ভয়ে পারিবারিক সহিংসতা বিষয়ক অভিযোগ দাখিলে উৎসাহ পাবেন এবং নির্যাতিতরা নিরাপত্তার স্বার্থেই দ্রুত নির্যাতকের এরিয়া ত্যাগ করতে ও নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারবেন। গুটি কতক ফেলনী আইনের অধীনে ডোমেস্টিক ভায়োলেন্সের মামলা করা যায় এবং অপরাধীদের সর্বোচ্চ ২৫ বছর পর্যন্ত কারাদন্ড দেয়া যায়।