পেইন কিলার-বিষয়ক হুঁশিয়ারি

ঠিকানা রিপোর্ট : দীর্ঘকাল ধরে ব্যথা-বেদনার ভুক্তভোগী রোগীদের ক্ষেত্রে অপ্রত্যাশিতভাবে (বা সমাপ্তির আগেই বন্ধ করার) প্রেসক্রিপশনকৃত আফিমজাত ড্রাগ বন্ধের ভয়াবহ পরিণতি সম্পর্কে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। দ্য ইউএস হেলথ অ্যান্ড হিউম্যান সার্ভিসের পক্ষ থেকে ১৪ অক্টোবর চিকিৎসকদের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে, দীর্ঘকাল ধরে ব্যথা-বেদনার ভুক্তভোগী রোগীদের প্রেসক্রিপশনকৃত পেইনকিলার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে রোগীদের সাথে আলাপ-আলোচনা করার জন্য।

স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে দ্য আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের জার্নালে চিকিৎসকদের জন্য ৬ পৃষ্ঠার একটি গাইড এবং এডিটরিয়াল প্রকাশ করা হয়েছে। ১৯৯০ এর দশকে পেইনকিলারের ওভারপ্রেসক্রাইবিংয়ের দরুন প্রথম দফা জাতীয় পর্যায়ে ওভারডোজ সংকট সৃষ্টি হয়েছিল। জীবনের শেষ পর্যায়ে উপনীত ক্যান্সার রোগীদের জন্য কিংবা সার্জারির পর ব্যথা-বেদনা বা দীর্ঘকালীন পিঠের বেদনা জাতীয় বেদনা উপশমের জন্য আগে আফিমযুক্ত বেদনানাশক প্রেসক্রাইব করা হতো। পরবর্তী ধাপে ড্রাগ কোম্পানিগুলো বেদনানাশকের সঙ্গে আসক্তি ও ওভারডোজ উপাদান সংযোজন করে।

অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি এবং হাসপাতালগুলো আফিমযুক্ত বেদনানাশকের সতর্কতা সম্পর্কিত ভুল ব্যাখ্যা দেওয়ায় কিছু সংখ্যক রোগী ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আর চিকিৎসকরা আফিমযুক্ত বেদনানাশক প্রেসক্রাইব বন্ধ করে দেওয়ায় ফেন্টানিল এবং হেরোইনজাতীয় ড্রাগের ব্যবসা রাস্তাঘাটে ছড়িয়ে পড়ে।

এপ্রিল মাসে ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অক্সিকনটিন, ভিকোডিন এবং কয়েক ডজন পিলজাতীয় ড্রাগে নতুন লেবেল অ্যাডভাইস (উপদেশ সংবলিত লেবেল) লাগিয়ে দেয়। হঠাৎ আফিমজাত মেডিসিন বন্ধ করে কিংবা মাত্রা বহুলাংশে কমিয়ে দেওয়ায় আফিমের ওপর নির্ভরশীল কিছুসংখ্যক লোকের আত্মহত্যাসহ বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতির দিক বিবেচনা করেই ফুড অ্যান্ড ড্রাগ নতুন উপদেশ সংবলিত লেবেল ওষুধের গায়ে লাগিয়ে দেয়। নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, স্বেচ্ছায় আফিমযুক্ত ড্রাগের ওষুধের মাত্রা কমানো হলে ব্যথা-বেদনার পরিমাণ না বাড়িয়ে বরং জীবনযাত্রার মান উন্নত করে। আর ওষুধের মাত্রা কমিয়ে আনতে কয়েক মাস থেকে কয়েক বছর সময়ও লাগতে পারে।