ফুটবলে নতুন বছরে অনেক খেলা

স্পোর্টস রিপোর্ট : দেশের ফুটবলে ২০১৬ সালের শেষটা ছিল বিভীষিকাময়। ১০ অক্টোবর ভুটানের কাছে হেরে দেশের ফুটবলে যে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল তা এখনো থামেনি। তবে পোড়া ঘায়ে প্রশান্তির প্রলেপ দিয়েছে নারী ফুটবল। গেল বছর জুড়ে নারী ফুটবলের সাফল্য ছিল আলোচনার টেবিলে।
পুরনো বছর শেষ। আজ নতুন বছরে পা দিয়েছে দেশের ফুটবল। সংগঠকরা আশা করছেন এ বছরটা হবে ফুটবলময়। কারণ সামনে প্রচুর খেলা রয়েছে। পুরুষ এবং নারী, ফুটবলের উভয় আঙিনায় পায়ে পায়ে থাকবে ফুটবল। সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) এবং এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) প্রচুর খেলা হয়েছে। সিনিয়রদের পুরুষ এবং নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ রয়েছে এ বছর। বর্ষপঞ্জিতেপুরুষ এবং নারী সিনিয়র সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ছাড়াও বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট হওয়ার কথা রয়েছে। বাফুফে এখনো
কোনো সূচি ঘোষণা করেনি। তবে পুরুষ সাফের জন্য ৪-১৫ সেপ্টেম্বর ঘোষণা দেওয়ার কথা রয়েছে। বছরের মাঝামাঝি সময়ে হতে পারে বঙ্গবন্ধু কাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল। বাফুফের ভাবনায় মার্চে ফিফা প্রীতি ফুটবল রয়েছে। বিপক্ষ ব্রুনাই এবং কম্বোডিয়া। একটি খেলা হবে ঢাকায়। নভেম্বরে আরো দুটি ফিফা প্রীতি ম্যাচ হতে পারে।
নতুন বছরে চট্টগ্রামে রয়েছে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট। জাতীয় দলের খেলা ছাড়াও এএফসি এবং সাফের বিভিন্ন বয়সভিত্তিক ফুটবলও রয়েছে বর্ষপঞ্জিতে। বাফুফে সিনিয়র জাতীয় দলের চেয়ে বয়সভিত্তিক দলগুলোর প্রতি নজর দিচ্ছে বেশি। আগামী দিনের জাতীয় দল গঠনের প্রতি তাদের বাড়তি মনোযোগ রয়েছে। জাতীয় দলের ব্রিটিশ কোচ এন্ড্রু অরড সে পথ তৈরি করছেন। এরই মাঝে বয়সভিত্তিক সাফ এবং এএফসির খেলায় ভালো পারফরম্যান্স করে এসেছে নেপাল এবং কাতারে। ভুটানের মাঠে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলে রানার্সআপ বাংলাদেশ। নেপালে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফে বাংলাদেশ তৃতীয় হয়।
এএফসি কাপ ফুটবলে খেলবে আবাহনী। কারণ লিগের পয়েন্ট টেবিলে আবাহনীর অবস্থান খুবই শক্ত স্থানে। আবাহনী ছাড়া সাইফ স্পোর্টিং কিংবা মোহামেডান যে দলই উঠুক, ‘ই’ গ্রুপে খেলবে। আবাহনীকে গ্রুপে তিন নম্বরে রেখেছে এএফসি। বাংলাদেশি ক্লাব দুটি অন্তত ৬টি করে ম্যাচ খেলবে। প্রি- প্লেঅফ জিতলে প্লেঅফ খেলবে। সেখানে জয় পেলে গ্রুপ পর্বে উঠবে। গ্রুপ পর্বে গিয়ে ৬টি খেলা পাবে। সব মিলিয়ে ১০টি হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ম্যাচ পাবে।
ব্যস্ততাটা বেশি থাকবে নারী ফুটবলারদের জন্য। হালে অসাধারণ সাফল্য এনে দেওয়া মহিলা ফুটবলারদের জন্য এশিয়ান গেমসের দরোজা খুলে দিয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। আগস্ট-সেপ্টেম্বরে ইন্দোনেশিয়ায় এশিয়ান গেমস। ডিসেম্বরে জাতীয় দলের নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ঢাকায় হতে পারে। মে মাসে থাইল্যান্ডে ফুটসালে খেলতে যাবে নারী ফুটবল। সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবরে এএফসির অনূর্ধ্ব-১৬ ও অনূর্ধ্ব-১৯ টুর্নামেন্টের বাছাই। এ ছাড়াও ভারতকে হারিয়ে জেতা সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ টুর্নামেন্টের শিরোপা ধরে রাখার নতুন লড়াইয়ে নামবে মেয়েরা। রয়েছে মেয়েদের নতুন বয়সভিত্তিক সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপ।