ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামে ফিরছেন ট্রাম্প

ছবি : সংগৃহীত

ঠিকানা অনলাইন : দুই বছরের বেশি সময় নিষিদ্ধ থাকার পর অবশেষে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ফিরে পাচ্ছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল বুধবার এ কথা জানিয়েছে ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের প্যারেন্ট কোম্পানি মেটা। তবে ট্রাম্প তার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেও ঠিক কবে তা সচল হবে নিশ্চিত করেনি মেটা। খবর বিবিসির।

২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হেরে যান ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে এ নিয়ে বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ান। তার নির্দেশে ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটাল হিলে আক্রমণ করে রিপাবলিকান পার্টির সমর্থকরা। এ ঘটনার জেরে বন্ধ করে দেওয়া হয় তার অ্যাকাউন্ট দুটি।

সে সময় ফেসবুক জানায়, ট্রাম্পের আচরণ ছিল সংস্থাটির নিয়ম-কানুনের চরম লঙ্ঘন। যদিও সেভ আমেরিকা পলিটিকাল অ্যাকশন কমিটির পক্ষ থেকে পাঠানো একটি বিবৃতিতে ট্রাম্প দাবি করেন, ফেসবুকের ওই পদক্ষেপ কোটি কোটি মানুষকে অপমান করেছে, যারা তাকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

দ্বিতীয় আরেকটি বিবৃতিতে ট্রাম্প ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতাকে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, এরপর আবার যখন আমি হোয়াইট হাউসে থাকব, মার্ক জুকারবার্গ এবং তার স্ত্রীর অনুরোধে আর কোনো ডিনার হবে না।

মেটার কর্মকর্তা নিক ক্লেগ জানিয়েছেন, ক্যাপিটাল হিল দাঙ্গায় অংশ নেওয়া দাঙ্গাবাজদের প্রশংসা করার পর ফেসবুক ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ করে। তারা তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখেছেন ট্রাম্পের ফেসবুক অ্যাকাউন্টটির মাধ্যমে এখন আর সাধারণ মানুষের জন্য কোনো ধরনের ঝুঁকি তৈরির সম্ভাবনা নেই। তবে ট্রাম্প যেহেতু এর আগে নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করেছিলেন, যদি আরেকবার তিনি এমনটি করেন তাহলে পরবর্তীতে আরও বড় শাস্তির মুখে পড়বেন।

ফেসবুকে ৩৪ মিলিয়ন ও ইনস্টাগ্রামে ২৩ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছে ট্রাম্পের। তবে অ্যাকাউন্ট সচল হলেও সহিংস বা উস্কানিমূলক পোস্ট ঠেকাতে কড়াকড়ির কথা জানিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াটি। কমিউনিটি বিধি লঙ্ঘন করলে মুছে দেওয়া হবে পোস্ট। এমনকি এক মাস থেকে দুই বছরের জন্য বন্ধ হতে পারে অ্যাকাউন্ট।

গত নভেম্বরে টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেও তা ব্যবহার করছেন না সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বরং নিজস্ব অ্যাপ ট্রুথ সোশ্যাল ব্যবহার করবেন বলে জানিয়ে দেন তিনি।

ঠিকানা/এম