বাঁশি বাজানোর অপেক্ষায় আঁখিমনি-সোহানা

স্পোর্টস রিপোর্ট : স্বপ্ন রেফারি হওয়ার। দেশের গ-ি পেরিয়ে বিদেশে খেলার ইচ্ছা। ফুটবল আর খোখো নিয়ে কাটছে সাতক্ষীরার দুই স্কুলছাত্রী আঁখি ও সোহানার দিন। রেফারিংয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছে তারা। পেয়েছে সার্টিফিকেটও। ঢাকায় চূড়ান্ত প্রশিক্ষণ নিয়ে মাঠে বাঁশি বাজাবে আঁখিমনি ও সোহানা। ফিফার আয়োজনে প্রশিক্ষণ শেষ করে ওরা এখন স্বপ্ন দেখছে বাঁশিওয়ালী হওয়ার। সাতক্ষীরার মাঠে তারা সফলতার সঙ্গে শুরু করে রেফারিং। আঁখিমনি সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার শীতলপুর গ্রামের ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামের মেয়ে। সাতক্ষীরা শহরের কারিমা উচ্চবিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী সে। সোহানা খাতুন সাতক্ষীরা শহরের গড়েরকান্দা গ্রামের ইজিবাইকচালক সিরাতুল মোস্তাকিমের মেয়ে। একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী সে। আঁখি একজন গোলকিপার। সোহানা খেলে ডিফেন্সে।

আঁখি ও সোহানার পরিবার এবং স্কুল তাদের সমর্থন দিয়েছে। সাতক্ষীরার খোন্দকার আরিফ হাসান প্রিন্স তাদের প্রশিক্ষক।

সোহানা ও আঁখি জানায়, তারা সিনিয়র মহিলা ফুটবল দলের ক্যাপটেন সাতক্ষীরার সাবিনার পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছে। সাতক্ষীরার মাছুরা খাতুন, রাজিয়া খাতুন, প্রান্তি, সুরাইয়া, রুমা, রওশনারা, রিক্তা, মুক্তা, সোনিয়া ও শারমিন। খোখোতে সাতক্ষীরার আরিফা, সালমা, বক্সিংয়ে প্রাপ্তি, শুটিংয়ে রজনী, শোভা, অ্যাথলেটিক্সে শিরিন আক্তার, কাবাডিতে দোলা, পাখি, আঁখি, শারমিন, সাইক্লিংয়ে নাসরিন, মৌসুমী আর থ্রো বলে রয়েছেন নিহা, পিংকি ও হাসি। মাঠে বাঁশি বাজানোর অপেক্ষায় দুই নারী ফুটবলার।