বাংলাদেশের জন্য ১৭১টি পতাকা

স্পোর্টস রিপোর্ট : কুমিল্লা শহরের বাদুরতলার সিডিপ্যাথ হাসপাতাল ভবনের ১০ তলার ছাদে এখন উড়ছে ১৭১টি জাতীয় পতাকা। এই আয়োজনের উদ্দেশ্য বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলের সাফল্য কামনা। ইংল্যান্ডে এবারের আসর শুরুর আগেই নিজ দেশের সমর্থনে পতাকা টাঙানোর উদ্যোক্তা ক্রিকেটপ্রেমী মো. হাসান। বাঁশ ও দড়ি ব্যবহার করে ভবনের ছাদে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ১৭১টি পতাকা টাঙিয়েছেন তিনি। জাতীয় পতাকায় ছাদ সাজানোয় ভবনটি এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। গত ২৮ জুন গিয়ে দেখা যায়, বাতাসে দুলছে লাল-সবুজ পতাকা। কোনোটি জড়িয়ে গেলে নিজ হাতে ঠিক করে দিচ্ছেন মো হাসান। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীন হয়েছি তার জন্য ৭১টি পতাকা। বাকি ১০০ পতাকা ব্যাটসম্যানদের সেঞ্চুরির প্রত্যাশায়। আমি চেয়েছি এবার বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা একাধিক সেঞ্চুরি করবেন।’ এই ক্রীড়ামোদী বলেন, ‘এরই মধ্যে সেই প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে। সাকিব আল হাসান দুইবার আর মুশফিকুর রহীম একবার শতরান করেছেন।’
মহানগরীর উত্তর গাংচরের বাসিন্দা হাসান সিডিপ্যাথ হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তার দায়িত্বে আছেন। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘বিশ্বকাপ ফুটবল চলার সময় আমরা অনেক মাতামাতি করি। বাড়ির ছাদে বড় বড় পতাকা লাগাই, পুরো বাড়ি রাঙানো হয় প্রিয় দেশের সমর্থনে। কিন্তু আমার দেশ বাংলাদেশ যখন এত বড় আসরে খেলছে তখন কেন আমরা পতাকা লাগাই না?’ পছন্দের খেলোয়াড়ের ব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, ‘সাকিব আমার পছন্দের খেলোয়াড়, সাকিব ছাড়া আর কোনো কথা নেই।’
এক প্রশ্নের জবাবে হাসান বলেন, ‘বাংলাদেশ হারলে খারাপ লাগে, তার থেকে বেশি খারাপ লাগে যখন দেখি বৃষ্টির জন্য খেলা বন্ধ।’ বাংলাদেশের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী এই ভক্ত আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ যদি এবার সেমিফাইনাল খেলে তাহলে আমরাই কাপ জিতব।’ আলাপে জানা গেল, তার ছেলে মো. আমিনুল ইসলাম সিহান লন্ডন প্রবাসী ও ক্রিকেটার। তিনি বাংলাদেশের প্রতিটি খেলা মাঠে গিয়ে দেখেন জানিয়ে হাসান বলেন, ‘আমার ছেলে লন্ডনে বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে ক্রিকেট খেলে। ২০১৬, ১৭ ও ১৮ সালে টানা তিনবার লন্ডন ক্রিকেট লিগে সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছে। ভবিষ্যতে তার লন্ডনে একটি ক্রিকেট ক্লাব প্রতিষ্ঠা করার ইচ্ছা আছে।’