বিএনপির গণসমাবেশ ঘিরে কুমিল্লায় পরিবহন ধর্মঘট থাকছে না

ছবি সংগৃহীত

ঠিকানা অনলাইন : বিএনপির অন্যান্য বিভাগীয় গণসমাবেশের আগে বিভিন্ন দাবিতে পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হলেও কুমিল্লা বিভাগীয় গণসমাবেশকে ঘিরে কোনো ধর্মঘট থাকছে না। ২৩ নভেম্বর বুধবার রাতে কুমিল্লা পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ কবির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পরিবহন মালিক বা শ্রমিকদের দাবির সঙ্গে কিংবা ধর্মঘটের সঙ্গে বিএনপির সমাবেশের কোনো সম্পর্ক নেই। আমি পরিবহন মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটিরও সভাপতি। সংগঠনের কেন্দ্র থেকে এখন পর্যন্ত কোথাও ধর্মঘটের নির্দেশ দেওয়া হয়নি। কিছু কিছু জায়গায় পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়েছে, সেসব এলাকার আঞ্চলিক নেতাদের একক ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তে। সেসব সিদ্ধান্তে পরিবহন মালিক সমিতির কোনো হস্তক্ষেপ ছিল না। পরিবহন মালিক সমিতি একটি স্বাধীন সংগঠন। আমাদের দাবিদাওয়া আছে এটা ঠিক, তবে আমরা এখন এগুলো সামনে আনতে চাই না।

জেলা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ ফেরদৌস আহমেদ বলেন, ধর্মঘটের বিষয়ে আমাদের এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। তবে বিষয়টি আগামীকাল ভালোভাবে বলতে পারব।

এদিকে কুমিল্লায় পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। এতে ঢাকা থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে চট্টগ্রাম। ব্যবসা-বাণিজ্যে বড় ধরনের ক্ষতি হবে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াসিন বলেন, সরকারের পালিত পরিবহন নেতারা যেখানেই ধর্মঘট দিচ্ছেন, সেখানেই তুলনামূলকভাবে মানুষের সমাগম আরও বেশি হচ্ছে। কুমিল্লায় যদি না ধর্মঘট না দেয়, তাহলে আমি বলব- সর্বস্তরের লাখ লাখ মানুষ সমাবেশে অংশ নিয়ে এই সরকারকে লাল কার্ড দেখাবে।

প্রসঙ্গত, নিত্যপণ্য ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, পুলিশের গুলিতে নেতাকর্মীদের মৃত্যুর প্রতিবাদে এবং বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে দেশের সব বিভাগে গণসমাবেশ করছে বিএনপি। চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা, রংপুর, বরিশাল, ফরিদপুর, সিলেটের পর ২৬ নভেম্বর শনিবার কুমিল্লায় গণসমাবেশ করবে দলটি। কুমিল্লা টাউন হল মাঠে সমাবেশের আয়োজন চলছে। এটি বিএনপির অষ্টম বিভাগীয় গণসমাবেশ। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ঠিকানা/এনআই