বিএনপি ও জাতীয়তাবাদী ফোরামের শহীদ জিয়ার জন্মবার্ষিকী পালন


ঠিকানা রিপোর্ট: গত ১৯ জানুয়ারি ছিলো বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদী রাজনীতির প্রবর্তক ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপ্রতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী। প্রবাসে অনেকটা নীরবেই চলে গেল শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠন বলতে গেলে কোন কর্মসূচি পালন করেনি। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির একটি অংশ দায়িত্ব পালনের অংশ হিসাবে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছেন অন্যদিকে জাতীয়তাবাদী ফোরামের একটি অংশ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি এবং ভার্জিনিয়া স্টেটের স্টেট সিনেটর পদপ্রার্থী শরাফত হোসেন বাবু এবং সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসীম ভূইয়ার নেতৃত্বাধীন বিএনপি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গত ২০ জানুয়ারি বাদ মাগরিব জ্যাকসন হাইটস ইসলামিক সেন্টার ও মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সহ সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু, সাবেক সহ সভাপতি প্রফেসর দেলোয়ার হোসেন, সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসীম ভূইয়া, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাঈদ, সিটি বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন, বিএনপি নেতা দেওয়ান কাওসার, রুহুল আমিন নাসির, সালেহ আহমদ মানিক, মোহাম্মদ দীপু প্রমুখ। দোয়া পরিচালনা করেন জ্যাকসন হাইটস জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল সাদেক। তিনি শহীদ জিয়া, আরাফাত রহমান কোকোর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন। এ ছাড়াও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য কামনা করা হয়।
জাতীয়তাবাদী ফোরাম
গত ১৯ জানুয়ারি সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের তিতাস রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম ইউএসএ ইনক স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৩তম জন্মবাষির্কী পালন করেছে দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠানের মধ্যেদিয়ে।
ফোরাম সভাপতি শেখ হায়দার আলীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেনের পরিচালনায় শুরুতেই শহীদ জিয়ার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন যৌথভাবে ফোরামের সাবেক প্রধান উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন ও সাবেক সভাপতি নাছিম আহমেদ। এছাড়াও দোয়া পর্বে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য ও মুক্তি কামনায় দোয়া, আরাফাত রহমানের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া, আন্দোলন সংগ্রামে নিহত আহত নেতা কর্মীদের জন্য দোয়া করা ছাড়াও সম্প্রতি ফোরাম নেতৃবৃন্দের নিকটাত্মীয়দের মৃত্যতেও দোয়া করা হয়।
আলোচনা পর্বে বক্তারা শহীদ জিয়ার কর্মময় জীবনের উপর অংশ নিয়ে বলেন, ভোট ডাকাতির মাধ্যমে নব্য স্বৈরাচার আওয়ামী সরকার নিলর্জভাবে বিত্রনপির
বিজয়কে ছিনিয়ে নিয়েছে। সরকার দমনপীড়নের মাধ্যমে বিত্রনপিকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে। কিন্তু এটি কখনো সম্ভব নয়, কারণ বিত্রনপি শহীদ জিয়ার আদর্শ জাতীয়তাবাদীদের অন্তরে প্রোথিত।
আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ড. নুরুল আমিন পলাশ, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন, ফারুক হোসেন মজুমদার, ছাইদুর খান ডিউক, নাছিম আহমেদ, তানভীর হাসান খান প্রিন্স, এটিএম হেলালুর রহমান হেলাল, মোঃ নাসির উদ্দিন, ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য মার্শাল মুরাদ,যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম জনি, জাহাঙ্গীর আলম জয়, মোঃ আনোয়ার হোসেন, এলিজা আক্তার মুক্তা, বিত্রনপি নেত্রী সৈয়দা মাহমুদা শিরিন ও মেহের জাবীন রহমান আইরিন।
অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জামালুর রহমান চৌধুরী,
ইসতিয়াক রুমী, সুলতানা খানম, সালজার খান হৃদ ও সাদিয়া আফরিন।
অনুষ্ঠানে ফোরামের প্রধান উপদেষ্টা ডাঃ নার্গিস রহমান ব্যক্তিগত কারণে প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন। তিনি কার্যকরী কমিটির একজন সদস্য হিসেবে থাকবেন প্রধান উপদেষ্টার মতো দায়িত্বশীল পদে নয়। তার পরিবর্তে সাবেক ছাত্রদল নেতা ও ফোরাম নীতিনির্ধারণী কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার তানভীর হাসান খান প্রিন্সকে ফোরামের ২০১৯ সালের কমিটির প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে নতুনভাবে নির্বাচিত করা হয়।পরিশেষে ফোরাম সভাপতি শেখ হায়দার আলীর সমাপনী বক্তব্যের মধ্যেদিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।