বিশ্ব একাদশে সাকিব-তামিম

স্পোর্টস রিপোর্ট : ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন চ্যারিটি টি-২০ ম্যাচে বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলবেন বাংলাদেশের দুই তারকা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) পক্ষ থেকে গত ২৩ এপ্রিল এককথা জানানো হয়েছে।
গত বছরের সেপ্টেম্বরে হারিকেন ইরমা ও মারিয়ার আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে যায় ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জের দু’টি ক্রিকেট স্টেডিয়াম। সঙ্গে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া স্টেডিয়াম দু’টির সঙ্গে আরো তিনটি স্টেডিয়ামের সংস্কারের জন্য তহবিল গঠনের লক্ষ্যে আয়োজন করা হয়েছ এই চ্যারিটি ম্যাচের। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে বিশ্ব একাদশের এই চ্যারিটি ম্যাচটি আয়োজনের সিদ্বান্ত নেয় আইসিসি, মেরিলবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি) ও ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।
আগামী ৩১ মে লর্ডসে অনুষ্ঠিতব্য ম্যাচে সাকিব ও তামিমের সঙ্গে বিশ্ব একাদশে রয়েছেন ওয়ানডে ক্রিকেটে বিশ্বের এক নম্বর বোলার আফগানিস্তানের লেগ স্পিনার রশিদ খানও। টি-২০ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে বিশ্ব একাদশের জার্সিতে দেখা যাবে বাংলাদেশের টেস্ট-টি-২০ অধিনায়ক সাকিব ও ড্যাশিং ওপেনার তামিম এবং রশিদকে। বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলতে এর আগে সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন পাকিস্তানের শহিদ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক ও শ্রীলঙ্কার থিসারা পেরেরা।
অলরাউন্ডারদের তালিকায় ওয়ানডে ক্রিকেটে শীর্ষ ও টি-২০ ফরম্যাটের তৃতীয় স্থানে আছেন সাকিব। বর্তমানে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) টি-২০ ক্রিকেটে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। সানরাইজার্স হায়দারাবাদের জার্সি গায়ে আইপিএলে মাতাচ্ছেন সাকিব।
ম্যাচে অংশ নেয়া বাংলাদেশের অপর খেলোয়াড় তামিম বলেন, ‘ক্রিকেট এমন একটি খেলা যা মানুষকে একত্রিত করে, সেতুবন্ধন তৈরি করে এবং যেখানে খেলোয়াড়-দল একে অপরকে সমর্থন করে। আবারো বিশ্ব একাদশের দলে নির্বাচিত হয়ে আমি আনন্দিত। কারণ শুধু ক্রিকেটই বড় ও খেলাধুলাকে বড় করতে পারে। বিশ্ব ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশেষ অবদান রয়েছে। আর তাদের ভেন্যুগুলো সংস্কারে এই দলে খেলতে পারাটা অসাধারণ। পাশাপাশি লর্ডসে খেলাটা সবসময়ই সম্মানের। ২০১০ সালে আমি লর্ডসে সর্বশেষ খেলেছিলাম। তাই এখানে আমার দলের ও প্রতিপক্ষের সেরা ক্রিকেটারদের সাথে ম্যাচটি স্মরণীয় করে রাখতে চাই।’
চ্যারিটি ম্যাচ নিয়ে গিয়ে রশিদ বলেন, ‘ক্রিকেটের অন্যতম একটি কুলীন সদস্যকে সাহায্যে বেছে নেয়াটা এটি আমার নিজের ও আমার দেশের জন্য অনেক গৌরবের বিষয়। আমি জানি না এভাবে বলা ভুল হবে কি না, সত্তরের দশক থেকে নব্বইয়ের দশক পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ যা দেখিয়েছে, সেটা দেখেই আমাদের প্রজন্ম বা আগের প্রজন্ম ক্রিকেট খেলতে আগ্রহী হয়েছে। যদি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সাহায্য চায়, তবে আমাদের কারও কোনো দ্বিধা থাকতে পারে না।’
চ্যারিটি ম্যাচের জন্য ইতোমধ্যে চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যে দলের নেতৃত্বে থাকবেন কার্লোস ব্রাফেট। থাকবেন ক্রিস গেইল, মারলন স্যামুয়েলসের মতো তারকারাও। বিশ্ব একাদশের পুরো দল এখনো ঘোষণা করা হয়নি। তবে এই দলের নেতৃত্ব দেবেন ইংল্যান্ডের ওয়ানডে অধিনায়ক ইয়োইন মর্গ্যান।