বোল্টের চোখে ২০১৮ বিশ্বকাপ

স্পোর্টস ডেস্ক : উসাইন বোল্ট সাম্প্রতিক সময়ে ফুটবলে বেশ আগ্রহ দেখাচ্ছেন। দিন দুয়েক হতে চললো তিনি অনুশীলন করেছেন জার্মান ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে। একই সাথে আসছে জুনে তিনি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার জন্য সকার এইডের সাথে চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন।

এই গতিদানব বোল্ট এবার আসন্ন বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়েও কথা বললেন। তার মতে এবারের বিশ্বকাপের ফেবারিট আর্জেন্টিনা। মেসির হাতেই তিনি বিশ্বকাপ দেখতে পারলেও সম্ভাবনা দেখছেন অন্যদেরও।

তিনি বলেন, ‘আমি বিশ্বকাপের কয়েকটা খেলা দেখতে যাবো। আমি আর্জেন্টিনার বড় ফ্যান। আমার মতে ওরাই এবারের ফেবারিট। ওদেরই সমর্থন করব। তবে, এবারে আরো বড় বড় কিছু শক্তি আছে।’

আর্জেন্টিনা ছাড়া অন্যদের মধ্যে বোল্ট ব্রাজিল, জার্মানি ও ফ্রান্সের কথা বললেন, ‘বরাবরের মত এবারো জার্মানিকে বিশ্বকাপের বড় শক্তি মানতেই হবে। নেইমার ফিরতে পারলে ব্রাজিলও ছেড়ে কথা বলবে না। শীর্ষ চার ফেবারিট দলের মধ্যে আর্জেন্টিনা ছাড়াও ফ্রান্সের কথাও বলতে হয়।’ আসছে জুনে মাঠে গড়াচ্ছে বিশ্বকাপ। ফুটবলের সবচেয়ে বড় মঞ্চে রাশিয়ার মাটিতে গ্রুব পর্বের লড়াইগুলো খুব কঠিন হবে না আর্জেন্টিনার জন্য। প্রতিপক্ষরা হলো আইসল্যান্ড, ক্রয়োশিয়া ও নাইজেরিয়া। তবে, নেইমার ফিরে আসলে ব্রাজিলকে আটকাতে বেগ পেতে হবে আর্জেন্টিনাকে, দাবি বোল্টের।

তিনি বলেন, ‘নেইমারই ব্রাজিলের শক্তিমত্তার জায়গা। নেইমার বড় তারকা। বিশ্বের অন্যতম সেরা। ও একাই চাইলে ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জিতিয়ে দিতে পারে। তবে, এর আগে ওর ফেরাটা জরুরি। ব্রাজিল নিশ্চয়ই চাইবে না ওকে ছাড়া বিশ্বকাপ খেলতে।’ ২৬ বছর বয়সী নেইমার গত ফেব্রুয়ারিতে লিগ ওয়ানের ম্যাচে ইনজুরিতে পরেন। সেবার মার্সেইয়ের বিপক্ষে ম্যাচে তিনি পায়ের পাতায় ব্যথা পান।

এরপর সেটা কাটিয়ে উঠতে সার্জনের ছুড়ির নিচেও যেতে হয়েছিল প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনের (পিএসজি) এই ফরোয়ার্ডকে। খেলতে পারেননি উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচও। এখন পুনর্বাসনের মধ্যে আছেন নেইমার। সম্প্রতি তার ডাক্তার জানিয়েছেন, এই ব্রাজিলিয়ান তারকা দ্রুতই নিজের শারীরিক অবস্থার উন্নতি আনছেন।

বিশ্বকাপের মঞ্চে নেইমারের বিকল্প খুঁজে পাওয়া যে মুশকিল, সেটা সম্প্রতি ব্রাজিলের কোচ তিতেও বলে দিয়েছেন। যদিও, সর্বশেষ প্রীতি ম্যাচগুলোকে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল জয় পেয়েছে মেসি ও নেইমারকে ছাড়াই। ব্রাজিল মস্কোতে ৩-০ গোলে হারিয়েছে স্বাগতিক রাশিয়াকে। আর ইতালি দলকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্জেন্টিনা।