ব্রুকলিনে ‘চট্টগ্রামবাসী’র মেজবানে ঐক্যের জয়গান

ঠিকানা রিপোর্ট : ঐক্যের আহ্বানে নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে গত ২২ অক্টোবর শনিবার অনুষ্ঠিত হলো চট্টগ্রামের ঐত্যিবাহী মেজবান। ‘চট্টগ্রামবাসী’র ব্যানারে আয়োজন করা হলেও চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তা ও সদস্য সপরিবারে অংশ নেন। দল-মত নির্বিশেষে এবং সকল ভেদাভেদ ভুলে বিভক্ত চট্টগ্রাম সমিতির কর্মকর্তারা এই মেজবানে অংশ নেওয়ায় মূলত ঐক্য প্রক্রিয়ার পথ অনেকটাই সুগম হলো বলে জানা গেছে।
মেজবানের আয়োজক ছিলেন চট্টগ্রাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোক্তাদির বিল্লাহ, মো. জসিম উদ্দিন, নূরুস ছফা, মোহাম্মদ ইদ্রিস, মো. সুমন উদ্দিন, মোহাম্মদ এনাম, মো. জয়নাল হাসান, মো. রিদওয়ান, মো. ইকবাল হোসেন ভূঁইয়া, মোহাম্মদ ইয়াসিন ও মোহাম্মদ আতিক।
চট্টগ্রামবাসী ছাড়াও বায়তুল জান্নাহ, বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার ও দারুল জান্নাহ মসজিদ পরিচালনা কমিটির কর্মকর্তা ও মুসল্লিরা এই মেজবানে অংশ নেন।
মেজবানের অন্যতম আয়োজক ও চট্টগ্রাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোক্তাদির বিল্লাহ জানান, মেজবানে চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তা ও কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরা অংশ নেন। তাদের সরব উপস্থিতিতে মিলনমেলায় পরিণত হয় চট্টগ্রাম সমিতির নিজস্ব ভবন। তিনি জানান, মেজবানে অতিথিদের মেজবানি খাবার, বিশেষ করে গরুর মাংসের তরকারি, ডাল ভুনা ও সাদা ভাত দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রায় ১২’শ মানুষ মেজবানি খাবার খেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তোলেন। একটি সূত্র জানায়, নেতৃত্বের কোন্দলে চট্টগ্রাম সমিতি বিভক্ত। রয়েছে পাল্টাপাল্টি কমিটি। আদালতে মামলাও চলছে। এর ফলে দীর্ঘদিনের ঐতিহ্যবাহী সংগঠনটির সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে। এই উপলব্ধি থেকে ত্যাগী নেতারা ঐক্য চাচ্ছেন। ধারণা করা হচ্ছে, ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রাথমিক ধাপ হিসাবে ২২ অক্টোবর শনিবার আয়োজন করা হয় মেজবান। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের বহুমাত্রিক ঐতিহ্যবাহী একটি ভোজের অনুষ্ঠান মেজবান।