ভুয়া বিয়ের জন্য কারাদণ্ড, বাতিল গ্রিনকার্ড সিটিজেনশিপ

ঠিকানা রিপোর্ট : ভুয়া বিয়ের আয়োজন করার মাধ্যমে ইমিগ্রেশন ফ্রডের জন্য বেশ কয়েকজনকে সম্প্রতি কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। বিভিন্ন দেশ থেকে আগতদের বিয়ের মাধ্যমে কাগজ পাইয়ে দেয়ার নামে ইমিগ্রেশন ফ্রড করার জন্য জর্জিয়ার নাগরিক ডেভিড নিকোলাসভিলিকে ৬ মাসের কারাদণ্ড, ২ বছরের সুপারভাইজড রিলিজ এবং ১২ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছে। তার মাধ্যমে যারা ইমিগ্রেশন পেয়েছে, তাদের গ্রিনকার্ড বা সিটিজেনশিপ বাতিলের ব্যবস্থা হয়েছে।

নিকোলাসভিলি নিউইয়র্কের কুইন্সে বসবাস করতেন। ইউএস ডিস্ট্রিক্ট জাজ রবার্ট এন চাটিগান তাকে এ দণ্ড প্রদান করেন। ৫২ বছর বয়সী এ ব্যক্তি প্রায় ৬০ জন ইউরোপীয়কে ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস পাইয়ে দেয়ার জন্য ফ্রড স্কিম সাজিয়েছিলেন।

প্রত্যেকের কাছ থেকে এ জন্যে ১২ হাজার থেকে ২০ হাজার ডলার পর্যন্ত গ্রহণ করেন। তিনি ভুয়া বিয়ের আয়োজন করে এই ফ্রড করতেন। ২০১৬ সালের ২১ জুন তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং ৭৫ হাজার ডলারের বন্ডে তিনি জামিন পান। ২০১৭ সালে ২৬ জুলাই তিনি নিজেকে দোষী বলে স্বীকার করেন। আগামী ২৭ এপ্রিল থেকে তাকে জেলে থাকতে হবে।

যে সব মামলা এ ব্যক্তি করেছেন, তা এখন আরো পর্যালোচনা করছে ইউএসসিআইএস ফ্রড ডিটেকশন ও ন্যাশনাল সিকিউরিটি। এই তদন্তের সাথে জড়িত ছিল হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ইনভেস্টিগেশন, ইউএসসি আইস ফ্রড ইনভেস্টিগেশন, ন্যাশনাল সিকিউরিটি ও স্টেট ডিপার্টমেন্টের ব্যুরো অব ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি।

অপর এক ঘটনায় ২৯ বছর বয়সী ইয়ানা পাটাপোভা নামে একজনকে ভুয়া বিয়ে কেসে দোষী সাব্যস্ত করেছে। এই ইয়ানা পাটাপোভা সাড়ে তিন হাজার ডলারের বিনিময়ে থম্পসন নামে একজনকে বিয়ে করে কাগজ বানানোর চেষ্টা করে।

রাশিয়া থেকে পাটাপোভা এসেছেন আর থাকছেন অবৈধভাবে। ২০১৪ সালের এপ্রিলে তারা বিয়ে করেছেন বলে দেখানো হয়। ২০১৫ সালের মে মাসে তাদের ভুয়া বিয়ের কথা প্রকাশ হয়ে পড়ে ইন্টারভিউর সময়। তখন থেকে বিয়ে ফ্রডের মামলা শুরু হয়। ১০ জুলাই তার সাজা হবে। আর সর্বোচ্চ সাজা ৫ বছরের জেল।