ভেনেজুয়েলাকে সাহায্য করার আহ্বান রাশিয়ার

ঠিকানা ডেস্ক : আন্তর্জাতিক মহলের উচিত ভেনেজুয়েলার অর্থনৈতিক ও সামাজিক সমস্যা সমাধানের দিকে মনযোগী হওয়া, দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা নয়। এমন মন্তব্য করেছে রাশিয়া।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স।

ভেনেজুয়েলায় সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছে না বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বক্তব্য দেয়ার পর রাশিয়ার পক্ষ থেকে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হলো।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ল্যাতিন আমেরিকা বিভাগের প্রধান আলেক্সান্ডার শেতিনিন ৩ ফেব্রুয়ারি রোববার মস্কোয় বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক মহলের উচিত ভেনেজুয়েলার আর্থ-সামাজিক সমস্যাগুলোর সমাধানে সাহায্য করা; সীমান্তের বাইরে থেকে দেশটিতে ধ্বংসাত্মক হস্তক্ষেপ করা নয়।’

গত বছর নির্বাচনে নিকোলাস মাদুরো দেশটির প্রেসিডেন্ট পদে ছয় বছরের জন্য নির্বাচিত হন। তবে ওই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ আনেন বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদো ও বিভিন্ন সংস্থা।

এরপর চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে সরকারবিরোধী এক বিক্ষোভের সময় বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদো বর্তমান প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে অবৈধ উল্লেখ করে নিজেকে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেন। সেখানে শপথও নেন তিনি।

গুয়াইদোর এমন ঘোষণার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেন। এছাড়াও আরো কয়েকটি লাতিন আমেরিকান দেশও গুয়াইদোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে সমর্থন দেয়।

অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর প্রতি সমর্থনের কথা ঘোষণা করে রাশিয়া, চীন, তুরস্ক ও মেক্সিকোসহ আরো কয়েকটি দেশ। এরপর থেকে দেশটিতে চরম রাজনৈতিক সংকটের দেখা দিয়েছে।

এছাড়া আট দিনের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রভাবশালী কয়েকটি দেশ মাদুরোকে আট দিনের মধ্যে নির্বাচন দেওয়ার আল্টিমেটাম দেয়। অন্যথায় বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার হুমকি দেয়। কিন্তু মাদুরো তৎক্ষণাৎ এমন আল্টিমেটাম প্রত্যাখ্যান করেন। তারই প্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার ভেনেজুয়েলার বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।