মজা দেখাতে গিয়ে ৭ বছর বয়স্কা টুকারের মৃত্যু

ঠিকানা রিপোর্ট: গলায় বেল্ট পেচিয়ে খেলা দেখাতে গিয়ে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা গেছে ৭ বছর বয়স্কা প্রিসাইজ টুকার। কুইন্সের এস্টোরিয়াস্থ ১৯ তম স্ট্রীটের এপার্টমেন্ট এই হৃদয়বিদারী ঘটনা সংঘটিত হয় বলে ২৩ মার্চ জানা গেছে।

টুকারের জননী কন এডিসন শ্রমিক পিউরিটি ব্যাল্ডউইন পুলিশকে জানান যে তার কন্যা রীতিমত প্রাঙ্কস্টার এবং মৃত ও ভূয়া আঘাতের ভান করতে খুবই পছন্দ করত। ৩৯ বছর বয়স্কা ব্যাল্ডউইন জানান তার কন্যা রান্নাঘরে বেল্ট দিয়ে ঘাড়ের চারদিকে পেচিয়ে বেল্টের অপরপ্রান্ত রেফ্রিজারের সাথে বেঁধে খেলছিল।

ব্যাল্ডউইন কন্যা টুকারকে খেলা বন্ধ করার তাগিদ দিয়ে টুকারের ১৫ বছর বয়স্ক ভ্রাতা ডায়িজে টুকারকে নিয়ে কক্ষ ত্যাগ করেন। ডায়িজকে নিয়ে ব্যাল্ডউইনের কক্ষটি ত্যাগের সময়ও টুকারের গলা বেল্টে পেচানো ছিল এবং সে কড়মড় করে পটেটো চিপস খাচ্ছিল। ডায়িজ কক্ষে ফিরে এসে তার ছোট বোনকে শ্বাসরুদ্ধ অবস্থায় দেখতে পেয়ে মার উদ্দেশ্যে চেঁচামেচি শুরু করে এবং চিৎকার দিয়ে পাড়াপড়শীর সাহায্য কামনা করে।

সোর চিৎকার শুনে ২৮ বছর বয়স্ক প্রতিবেশী জিয়াসটুডিস ও ডেবী রুদ্ধশ্বাসে অকুস্থলে হাজির হন। তারা দ্রুত বেল্ট খুলে ফেলে শিশুটিকে কৃত্রিম উপায়ে শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে প্রাণান্ত প্রচেষ্টা চালান। তৎক্ষণে জরুরি চিকিৎসক দলও ঘটনাস্থলে হাজির হন। ইমার্জেন্সী মেডিক্যাল টীম টুকারকে স্ট্রেচারযোগে বাইরে নিয়ে আসে এবং শ্বাসকার্যে সাহায্যের জন্য টুকারের পাকস্থলীতে টিউব প্রবেশ করায় ও চেস্ট কমপ্রেশন অব্যাহত রাখে। অথচ সারাক্ষণ টুকারের কাছ থেকে কোন সাড়া মিলেনি।

সামান্য কিছুক্ষণ টুকার শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়েছিল বলে জানা যায়। তাকে লং আইল্যান্ড জুইস কোহেন চিলড্রেন মেডিক্যাল সেন্টারে লাইফসার্পোট এবং ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল। কিন্তু টুকারের ব্রেন ডেড হওয়ায় সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয় এবং সকলকে শোক সাগরে ভাসিয়ে নিষ্পাপ টুকার চিরনিদ্রার কোলে আশ্রয় নেয়।