মতবিনিময় সমাবেশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন

প্রবাসীদেরকে আন্তরিক সহায়তার দিগন্ত অবারিত রাখতে হবে

নিউইয়র্ক : মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মেমেন এমপি।

ঠিকানা রিপোর্ট : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, প্রবাসীরা হচ্ছেন বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় প্রবাসীদের খোঁজ-খবর নেন এবং তাদের যেকোন সমস্যার কথা জানামাত্র
তা সমাধানের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। আর এ কারণেই শেখ হাসিনার সরকারকে ‘প্রবাস-বান্ধব’ হিসেবে অভিহিত করা হয়।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের একটি পার্টি হলে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত মতবিনিময় সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, সম্প্রতি ৭ বৃটিশ-বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে বলে জানার পরই আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী এবং অ্যাটর্নি জেনারেলের সাথে কথা বলেছি। তারা যদি অন্যায়ভাবে হেনস্তা হয়ে থাকেন তাহলে দায়ী ব্যক্তিরা অবশ্যই বিচারের আওতায় আসবে।

ড. মোমেন বলেন, শেখ হাসিনার বিচক্ষণ নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে। উন্নয়নের এই নিরবিচ্ছিন্ন ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালের আগেই উন্নত দেশের কাতারে উঠবে বাংলাদেশ। এজন্যে প্রবাসীদের আন্তরিক সহায়তার দিগন্ত অবারিত রাখতে হবে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের এই অভিযাত্রা থামিয়ে দিতে একটি মহল ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। সে ব্যাপারে দেশপ্রেমিক প্রতিটি প্রবাসীকে চোখ-কান খোলা রাখতে হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেট অঞ্চলের উন্নয়নে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের উপর আলোকপাতের পাশাপাশি রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়েও কথা বলেন।

এই মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বদরুল খান। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মনিরুল ইসলাম, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা আজমল হোসেন কুনু, অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফায়েল চৌধুরী, কুইন্স কাউন্টি ডিস্ট্রিক্টলিডার অ্যাট লার্জ অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী, বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সিদ্দীকী, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক উপদেষ্টা এম এ সালাম, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রানা ফেরদৌস চৌধুরী, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ শাহেদ চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুজাহিদুল ইসলাম ও প্রবীণ সাংবাদিক মোহাম্মদ উল্লাহ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলীম। পরে একে একে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটি ট্রাস্টি বোর্ডের অন্যতম সদস্য আজিমুর রহমান বুরহান, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি এবং অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সহসাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, নবীগঞ্জ উপজেলা ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ইউএসএ’র সভাপতি শেখ জামাল হোসেন, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট হাসান আলী, হেলডন ডেমোক্র্যাটিক ক্লাবের কমিশনার দেওয়ান বজলু চৌধুরী, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আব্দুর রাহিম বাদশা, কবি ও গীতিকার গউস উদ্দিন খান, সাবেক ছাত্রনেতা ও সংগঠক রেজাউল আলম অপু প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক উপদেষ্টা সদরুন নূর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার আতাউর রহমান সেলিম, নির্বাচন কমিশনার ও সাবেক সহসভাপতি সাব্বির হোসেন, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক সভাপিত আজিজুর রহমান সাবু, মাসুদুল হক সানু ও মোস্তফা কামাল, বিয়ানীবাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক মাহবুব, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ কাজী কয়েস, কুইন্স বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপিত শামস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম ভূঁইয়া রুমি এবং সাবেক সভাপতি তোফায়েল চৌধুরী, হবিগঞ্জ জেলা কল্যাণ সমিতি সাবেক সভাপতি সৈয়দ নাজমুল হাসান কুবাদ, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট মনিরুজামান চৌধুরী, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ হাজি নিজামউদ্দিন, ফকর উদ্দিন, আব্দুর রহমান, শাহীন আজমল,ও শামসুল আবিদন, সাবেক চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সহসভাপিত জোসেফ চৌধুরী, অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক আইন ও আন্তর্জাতিক সম্পদক শামীম আহমেদ মনির, সাবেক সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো. জামিল আনছারী, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নূর আলম জিকু, রাজনীতিবিদ মোহম্মদ জাহানগীর, রিয়েল এস্টেট ব্যাবসায়ী বেলাল আহমদ চৌধুরী, হবিগঞ্জ জেলা কল্যাণ সমিতি সাবেক সহসভাপিত আশফাকুল হক চৌধুরী, কুলাউড়া বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ আহমেদ, যুক্তরাষ্ট্র হবিগঞ্জ সদর সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর আব্দুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র হবিগঞ্জ সদর সমিতির সদস্য মো. তাজুল ইসলাম মানিক, ওসমানী নগর অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপিত বাঁশিরউদ্দিন, বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, শাহ গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহ জে চৌধুরী, ব্যবসায়ী একেএম ফজলুল হক, জেবিবির সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুল ইসলাম জাকির, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট মোস্তফা কামাল, আব্দুল খালিক প্রমুখ।

জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপিত মো. লোকমান হোসেন (লুকু), সহসভাপিত মো. শফিউদ্দিন তালুকদার, সহসভাপিত মোহাম্মদ শাহীন কামালী, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক ফয়সল আলম, সমাজকল্যাণ সম্পাদক জাহিদ আহমেদ খান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সুতিপা চৌধুরী, সদস্য হেলিম উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন মানিক প্রমুখ।

সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা সাইফুল আলম সিদ্দিকী এবং সমাপনীতে ইমাম কাজী কায়্যুমের নেতৃত্বে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।